• দুই গোষ্ঠীর পৃথক বিজয়া সম্মিলনী
    আনন্দবাজার, 22 November 2020
  • শহর এক। শাসকদলের গোষ্ঠী দুই। সেই মতো আয়োজন করা হয়েছে দু’টি পৃথক বিজয়া সম্মিলনী। সেই সম্মিলনীতে কোন নেতা হাজির হবেন, তা নিয়ে ধন্দে তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা।

    তমলুক শহর তৃণমূলের উদ্যোগে আজ, রবিবার সকাল ৯টায় বিজয়া সম্মিলনী ও রাজনৈতিক কর্মী সম্মেলন হচ্ছে শহিদ মাতঙ্গিনী স্বদেশ বাজার চত্বরে। ওই কর্মসূচির নেতৃত্বে রয়েছেন শহর তৃণমূল কমিটির সভাপতি বিশ্বনাথ মহাপাত্র। আবার আজই দুপুর ২টায় ‘তৃণমূল পরিবারে’র উদ্যোগে বিজয়া সম্মিলনী হচ্ছে তমলুক পুরসভার সুবর্ণ জয়ন্তী ভবনে। ওই কর্মসূচির নেতৃত্বে রয়েছেন তমলুক পুরসভার প্রশাসক রবীন্দ্রনাথ সেন, প্রশাসক বোর্ডের সদস্য দীপেন্দ্রনারায়ণ রায়।

    দু’টি পৃথক বিজয়া সম্মিলনী হলেও দুই শিবিরের আমন্ত্রণপত্রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, দলের জেলা সভাপতি শিশির অধিকারী এবং তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারীর ছবি রয়েছে। দুই শিবিরেরই আমন্ত্রণপত্রে জানানো হয়েছে, কর্মসূচিতে থাকবেন শিশিরবাবু এবং দিবেন্দ্যু অধিকারী। এ নিয়ে জোর প্রচারও চলছে।

    কিন্তু একই দিনে শহরে দুই গোষ্ঠীর পৃথক বিজয়া সম্মিলনীতে দলের জেলা নেতৃত্বরা উপস্থিত থাকবেন দাবি করায় তৃণমূলের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। শহর তৃণমূলের স্থানীয় নেতা মানব মিশ্র বলেন, ‘‘আমরা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে দেখে অনুপ্রাণিত হই এবং দলের কর্মী হিসাবে কাজ করি। কিন্তু তৃণমূল শহর কমিটির বিজয়া সম্মিলনীর সঙ্গে তৃণমূল পরিবারের নাম দিয়ে যেভাবে বিজয়া সম্মিলনীর আয়োজন করা হয়েছে, তাতে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। কোন সভায় যা বুঝতে পারছি না।’’ নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক ১৫ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার তৃণমূলের এক কর্মী বলেন, ‘‘বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বরা আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে বলছেন। আর সে সময় শহরের তৃণমূল নেতৃত্বরা নিজেদের মধ্যে গোষ্ঠী গড়ে একই দিনে পৃথক বিজয়া সম্মিলনী আয়োজন করছেন। কোন গোষ্ঠীর কর্মসূচিতে যাব, তা নিয়ে ধন্দে পড়েছি।’’

    যদিও কর্মসূচি নিয়ে কোনও ধন্দ থাকার প্রশ্ন নেই বলে দাবি করছেন শহর তৃণমূলের সভাপতি বিশ্বনাথ। তাঁর কথায়, ‘‘জেলা সভাপতি শিশির অধিকারীর সম্মতি নিয়েই আমরা বিজয়া সম্মিলনী এবং রাজনৈতিক কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করেছি। আমাদের কর্মসূচিতে শিশিরবাবু এবং সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী থাকবেন। আমন্ত্রণপত্রে সেই উল্লেখ করা হয়েছে। এ নিয়ে বিভ্রান্তির তো কিছু নেই।’’

    ‘তৃণমূল পরিবার’এর পক্ষে তমলুক পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের সদস্য তথা তৃণমূলের জেলা কোষাধ্যক্ষ দীপেন্দ্রনারায়ণ রায় বলেন,’’দলের পক্ষ থেকে বিজয়া সম্মিলনী আয়োজন করতে আমরা অনেক আগে প্রস্তুতি নিয়েছি। এরমধ্যে দলের একাংশ আরও একটি বিজয়া সম্মিলনীর কর্মসূচি নিয়েছে। আমাদের কর্মসূচিতে দলের জেলা সভাপতি শিশির অধিকারী, সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী উপস্থিত থাকবেন বলে সম্মতি জানিয়েছেন। তাই আমন্ত্রণপত্রে তাঁদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এবিষয়ে প্রচার করা হচ্ছে।’’

  • Link to News (আনন্দবাজার)