• দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ করোনা : মোদী
    হিন্দুস্তান টাইমস, 22 November 2020
  • করোনাভাইরাস মহামারী থেকে ঘুরে দাঁড়াতে বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশগুলিকে জোটবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড় করানোর উপর জোর দিতে হবে। একইসঙ্গে শাসন ​​ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা এবং পৃথিবীর সংরক্ষণের উপরও জোর দিতে হবে। জি-২০ শীর্ষ বৈঠকে এমনটাই জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

    শনিবার ভার্চুয়াল মাধ্যমে জি-২০ শীর্ষ বৈঠকে যোগ দেন মোদী-সহ ২০ টি দেশের রাষ্ট্রনেতারা। ছিলেন ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা। সেখানে মোদী জানান, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর করোনা মহামারীর সময় বিশ্ব সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছে। যে মহামারী বিশ্বের ইতিহাসে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সন্ধিক্ষণ। তবে এখন শুধুমাত্র অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড় করানো, কর্মসংস্থান এবং বাণিজ্যের উপর জোর দিলে হবে না, বরং বিশ্বকে রক্ষার জন্য জি-২০-এর সদস্য দেশগুলিকে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ করার আহ্বান জানান।

    সেই বৈঠকে করোনা-পরবর্তী দুনিয়ায় একটি বিশ্বব্যাপী সূচকের চালুরও প্রস্তাব দেন মোদী। তাতে দক্ষতা, সমাজের সব শ্রেণির কাছে প্রযুক্তি পৌঁছানোর বিষয়টি নিশ্চিত করা, শাসন ​​ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা এবং বিশ্বস্ততার উপর জোর দেওয়া হবে। যা জি-২০-কে নয়া বিশ্বের ভিত্তিপ্রস্তর নির্মাণে সাহায্য করবে। পরে টুইটারে মোদী বলেন, ‘প্রতিভা তৈরির জন্য বহমুখী দক্ষতা এবং আবারও দক্ষ করার ফলে আমাদের কর্মীদের মর্যাদা এবং সহনশীলতা বাড়বে। মনুষ্যত্বের উপর কী কী সুবিধা আছে, তার ভিত্তিতে নয়া প্রযুক্তির মূল্য বিচার করতে হবে।’

    একইসঙ্গে করোনা-পরবর্তী বিশ্বে যেহেতু ‘সব জায়গা থেকে কাজ’-ই ‘নিউ নর্ম্যাল’, সেজন্য জি-২০-র একটি ‘ভার্চুয়াল সচিবালয়’ তৈরিরও প্রস্তাব দেন মোদী। সেইসঙ্গে জি-২০-এর কার্যকরী কাজের স্বার্থে ডিজিটাল পরিকাঠামো আরও উন্নত করার জন্য ভারত তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা দেবে বলেও আশ্বাস দেন মোদী।
  • Link to News (হিন্দুস্তান টাইমস)