• 'কে বলছে, মিম বিজেপির দল?' ভোটের মুখে নয়া 'ফ্রন্ট' ঘোষণা আব্বাসউদ্দিনের
    ২৪ ঘন্টা, 22 January 2021
  • নিজস্ব প্রতিবেদন: ঘোষণা করেছিলেন আগেই। একুশের ভোটের মুখে এবার নতুন দল ঘোষণা করলেন আব্বাসউদ্দিন সিদ্দিকি (Abbasuddin Siddiqui)। তাঁর দলের নাম 'ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট'। ফ্রন্টের চেয়ারম্যান শ্রীমন সোরেন, আর সভাপতি নওশাদ সিদ্দিকি। কয়েকদিনের মধ্যে দলের পূর্ণাঙ্গ কমিটিও ঘোষণা করা হবে। আব্বাসউদ্দিন জানিয়েছেন, 'ধর্মে কোনও বাধা নেই, তাই রাজনীতিতে এসেছি। বিধানসভা ভোটে লড়ব না। দলকে নেতৃত্ব দেব'। ২৬ জানুয়ারি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে পথ চলা শুরু হবে 'ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টে'র। কর্মসূচি? আগামীদিনে ব্রিগেড থেকে ঘোষণা করা হবে।

    বিধানসভা ভোট যত এগিয়ে আসছে, ভোটের অঙ্কটাও কি ততই জটিল হচ্ছে? একুশের নির্বাচনে ইতিমধ্যেই বাংলায় প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মিম সুপ্রিমো আসাদউদ্দিন ওয়াইসি (Asaduddin Owaisi)। দিন কয়েক আগে হুগলির ফুরফুরা শরীফে (Furfura Sharif) হাজির হন তিনি। সেখানে পীরজাদা আব্বাসউদ্দিন সিদ্দিকির (Abbasuddin Siddiqui) সঙ্গে একান্ত বৈঠকও করেন মিম সুপ্রিমো। সে খবর প্রকাশ্যে আসতেই রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায় রাজনৈতিক মহলে। কারণ, ততদিনে বিধানসভা নির্বাচনের আগে নিজের দল ঘোষণা করবেন বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন আব্বাসউদ্দিন। মিমের সঙ্গে তাদের 'সম্পর্কের' জল কোনদিকে গড়াবে, তা নিয়ে জোর জল্পনা চলছিল।

    এই পরিস্থিতিতে এবার ভোটের ময়দানে আত্মপ্রকাশ করল 'ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট'। এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে আব্বাসউদ্দিন সিদ্দিকী বলেন, 'আমাদের পরিবারে অনেক পীর সাহেব আছেন। তাঁদের আর্শীবাদ রয়েছে। পার্টি তৈরি করেছি। আমাদের লক্ষ্য, অসহায় মানুষের কণ্ঠ হওয়া। মানুষ আমাদের শুনছেন।' এই ফ্রন্টে কোন কোন দল যোগ দিচ্ছে? আব্বাসউদ্দিনের জবাব, 'যে দলই আসবে, তাকে নিজের মনে করে পথ চলব।' ফ্রন্টে মিমের ভূমিকা কী হবে? মিম তো বিজেপি-কে সুবিধা করে দিচ্ছে? এবার পাল্টা প্রশ্ন এল, 'কে বলছে, মিম বিজেপির দল?'

    উল্লেখ্য, এবার বিধানসভা নির্বাচনের বাংলায় লড়বে শিবসেনাও। দিন কয়েক আগে টুইট করে একথা জানিয়েছেন দলের সাংসদ সঞ্জয় রাউত। টুইটে তিনি লেখেন, 'আপনাদের জন্য বহু প্রতীক্ষিত আপডেট। পার্টি সচিব উদ্ভব ঠাকরের সঙ্গে আলোচনার পর শিবসেনা এবার বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা শীঘ্রই কলকাতায় আসছি। জয় হিন্দ, জয় বাংলা।' বস্তুত, একুশের ভোটের লড়াই সামিল পড়শি রাজ্য বিহারের JDU-ও। বাংলায় ৭০-৭৫টি আসনে প্রার্থী দিতে চায় নীতীশ কুমারের দল। সূত্রের খবর, ভোটে লড়ার বার্তা দিয়ে ইতিমধ্যেই বাংলায় দলের কর্মীদের বার্তা দেওয়া হয়েছে খোদ নীতীশ কুমারের তরফে।
  • Link to News (২৪ ঘন্টা)