• অবসাদগ্রস্ত ডাক্তারি ছাত্রদের সাহায্য করতে অ্যাপ আনল কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ
    হিন্দুস্তান টাইমস | ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • বর্তমানে আত্মহত্যার প্রবণতা অনেকটাই বেড়েছে। বিশেষ করে করোনা অতিমারির পর থেকে এই প্রবণতা বেশি বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। সাধারণ ছাত্র তো বটেই ডাক্তারি পড়ুয়াদের আত্মহত্যার ঘটনাও অনেক ঘটছে। এই অবস্থায় পড়ুয়াদের মনোবল বাড়াতে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজের চালু হয়েছে একটি অনলাইন অ্যাপ। যার নাম হল ‘ক্রিয়েটিং হোপ থ্রু অ্যাকশন’। পড়ুয়াদের আত্মহত্যা এবং মানসিক চাপ থেকে মুক্ত করতে এই অ্যাপটি চালু করা হয়েছে। যার মাধ্যমে কোনও ডাক্তারি পড়ুয়া সরাসরি তাঁর মনের কথা বলতে পারবেন। অ্যাপটি মহারাজা জীতেন্দ্র নারায়ণ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সহায়তায় চালু করা হয়েছে।

    হাসপাতালের কোনও ডাক্তারি পড়ুয়া তাঁর সমস্যার কথা জানালে সে ক্ষেত্রে তাঁর পরিচয় গোপন রাখা হবে এবং সমস্যা কথা জানতে পারার ৩ দিনের মধ্যে তা মেটানোর উদ্যোগ নেওয়া হবে। আইটিআই বিশেষজ্ঞ এবং একটি বিশেষ টিমের মাধ্যমে এই অ্যাপ দেখাশোনা করা হবে বলে জানিয়েছেন মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ নির্মলকুমার মণ্ডল। শনিবার এই অ্যাপের উদ্বোধন করেন হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান পার্থপ্রতিম রায়। তিনি জানান, কোনও পড়ুয়া এই অ্যাপে যেমন নিজের সমস্যার কথা জানতে পারবেন তেমনি তাঁর সহপাঠীর আচরণ সম্পর্কেও এই অ্যাপে অবগত করাতে পারবেন। সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োজন বুঝে সংশ্লিষ্ঠ পড়ুয়ার পরিবারের সঙ্গেও কথা বলা হতে পারে।

    উল্লেখ্য, গত মাসের কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজের হস্টেলে এক ছাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার হয়। তাতে জানা যায় মানসিক অবসাদের কারণে আত্মঘাতী হয়েছিলেন ওই ছাত্রী। সেই ঘটনার পরে এই অ্যাপ চালু করার কথা ভাবে কর্তৃপক্ষ। আত্মহত্যা প্রতিরোধ করাই হল এই অ্যাপের প্রধান লক্ষ্য।  এই অ্যাপের মাধ্যমে যে কোনও পড়ুয়ার মানসিক সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করা হবে।  

    মেডিক্যাল কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, এই অ্যাপটি ডাউনলোড করার পর প্রথমে চালু করলে তাতে অপশন দেখাবে সমস্যাটি নিজের নাকি অন্য কারও। সেই মতো পড়ুয়া অপশন বেছে নিলে তারপর কোন বর্ষের পড়ুয়া এবং তাঁর নাম লিখতে হবে। তারপরে স্ক্রিনে ভেসে উঠবে কী কী ধরনের মানসিক সমস্যা। সেখানে ক্লিক করলেই কর্তৃপক্ষ জানতে পারবেন এবং সেই মতোই পদক্ষেপ করা হবে। প্রয়োজনে ছাত্রের কাউন্সেলিং করানো হবে। 

     
  • Link to this news (হিন্দুস্তান টাইমস)