• “মুখ খুললেই দেশদ্রোহের মামলা ঠুকে দেবে!”, যোগীকে কটাক্ষ বিজেপি বিধায়কের
    ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, 18 May 2021
  • করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা নিয়ে সরকারের সমালোচনায় মুখর একের পর এক বিধায়ক-সাংসদ। মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধেই তোপ দাগছেন নেতা-মন্ত্রীরা। উত্তরপ্রদেশে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই দলের বিধায়কদের সমালোচনা এখন মাথা ব্যথার কারণ হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। এবার বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন সীতাপুরের বিজেপি বিধায়ক রাকেশ রাঠোর। তিনি দাবি করলেন, মুখ খুললে দেশদ্রোহিতার মামলা ঠুকে দেওয়া হতে পারে।

    সীতাপুরে সাংবাদিকরা তাঁকে প্রশ্ন করেন, বিধানসভা এলাকা. করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে, হাসপাতালে আরও বেড, ট্রমা কেয়ার সেন্টার কেন করা হচ্ছে না? তার উত্তরে বিধায়ক বলেন, বিধায়কদের আর কী ক্ষমতা আছে! আমরা বেশি কিছু বললে দেশদ্রোহ, রাজদ্রোহের মামলা ঠুকে দেওয়া হবে আমাদের বিরুদ্ধে। লকডাউন কেন কড়াকড়া ভাবে পালন হচ্ছে না সেই প্রসঙ্গে বিধায়কের জবাব, সব কিছু ভাল চলছে। এর থেকে ভাল কিছু হতে পারবে না। আমরা তো আর সরকার নই, কিন্তু এটা বলতে পারি সরকার যা বলছে সেটাই সঠিক মানতে হবে।

    এরপরই তিনি বলেন, মুখে খুললে দেশদ্রোহের মামলা হতে পারে। মনে হবে, ওনাকে কেউ কিছু বলে ফেলেছে। এই মন্তব্যে নাম না করে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে কটাক্ষ করেছেন রাঠোর। তাঁর এই ভিডিও ভাইরাল হতেই দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে তিনি জানান, নিজের মন্তব্যে তিনি অনড়, কিন্তু এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে চান না। বলেছেন, “আমি আমার মনের কথা বলেছি, এর বেশি কিছু মুখ না খোলাই ভাল হবে।”

    গত বছরই নিজের মন্তব্যের জন্য শিরোনামে আসেন রাকেশ রাঠোর। সেবা তাঁর একটি ফোনালাপ ভাইরাল হয়ে যায় যেখানে তাঁকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আবেদনে থালা এবং প্রদীপ জ্বালানোকে কটাক্ষ করেছিলেন। এরপর আরও একটি ফোনালাপে তিনি উত্তরপ্রদেশে রামরাজ্য ফিরে এসেছে বলে সরকারকে ব্যঙ্গও করেছিলেন জনৈক ব্যক্তির কাছে। এরপর বিধায়ককে দলবিরোধী মন্তব্যের জন্য শোকজ নোটিস পাঠানো হয়।
  • Link to News (ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস)