• হাইকোর্টে পৃথক জামিন আবেদন ৪ নেতা-মন্ত্রীর, নারদ মামলা অন্যত্র সরাতে উদ্যোগ
    ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, 18 May 2021
  • পৃথক ভাবে জামিনের আবেদন পুনর্বিবেচনার আর্জি জানাবেন নারদ-কাণ্ডে ধৃত ৪ নেতা-মন্ত্রী। তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে এমনটাই খবর। বুধবার সিবিআইয়ের জামিনের বিরধিতা করে দায়ের মামলার শুনানি হবে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চে। এর সঙ্গেই মঙ্গলবার পৃথক ভাবে জামিনের আবেদন পুনর্বিবেচনার আর্জি জানাবেন চার নেতা-মন্ত্রী। শাসক দলের অভ্যন্তরীণ বৈঠকে এই রণকৌশল স্থির হয়েছে।

    নেতা-মন্ত্রীদের তরফের আইনজীবী অনিন্দ্যকিশোর রাউত বলেন, ‘‘কলকাতা হাইকোর্টে মামলার শুনানি বুধবার হলেও, মঙ্গলবারই পৃথক ভাবে প্রত্যেকে জামিন পুর্নবিবেচনার আবেদন জানাবেন। কারণ আইনি লড়াইয়ের ক্ষেত্রে যা যা করণীয় তা আমরা করব।’’

    জানা গিয়েছে, হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল ও বিচারপতি অরিন্দম ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ বুধবার এই আবেদনের শুনানি করতে পারেন। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার বিকেলে ওই নেতা-মন্ত্রীদের আবেদন জমা পড়বে হাই কোর্টে। প্রসঙ্গত, নারদ মামলা নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট নয়, কলকাতা হাইকোর্টেই লড়তে চায় রাজ্যের শাসক দল।

    এদিকে, সুপ্রিম কোর্টে এ বার ক্যাভিয়েট দাখিল করতে চলেছে সিবিআই। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আগাম প্রস্তুতি নিতেই এমন ভাবনা কেন্দ্রীয় ওই গোয়েন্দা সংস্থার। এর ফলে সিবিআই-কে অন্তর্ভুক্ত না করে একতরফা ভাবে কোর্ট কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না বলে মনে করছেন আইনজীবীরা।

    নারদ-কাণ্ডে সোমবার ৪ নেতা-মন্ত্রীকে গ্রেফতার করে সিবিআই। পরে ওই দিনই সন্ধ্যায় তাঁরা নিম্ন আদালত থেকে জামিন পান। জামিনের বিরোধিতা করে হাইকোর্টে যায় সিবিআই। হাই কোর্ট জামিনে স্থগিতাদেশ জারি করে অভিযুক্তদের দু’দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়। বুধবার ওই মামলার ফের শুনানি রয়েছে।

    সেখানে অভিযুক্তদের জামিন হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করে সুপ্রিম কোর্টে আগাম ক্যাভিয়েট দাখিল করতে চলেছে সিবিআই। মঙ্গলবার তদন্তকারী সংস্থার তরফে জানা গিয়েছে, বুধবার কলকাতা হাইকোর্টের রায় যে পক্ষের বিপরীতে যাবে তারাই সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে। তাই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়ে আগাম ব্যবস্থা নিয়ে রাখছে সিবিআই। এই মামলায় কোনওভাবেই ধৃতদের নিজেদের হেফাজতে চাইবে না সিবিআই। উলটে বাংলায় আইনশৃঙ্খলার অবনতি এবং সোমবার নিজাম প্যালেসের বাইরে হওয়া বিক্ষোভকে হাতিয়ার করে মামলা অন্য রাজ্যে সরাতে তৎপর কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। গুয়াহাটি বা ভুবনেশ্বরে এই মামলা সরিয়ে নিয়ে যেতে হাইকোর্ট বা সুপ্রিম কোর্টে দরবার করতে পারে সিবিআই।  
  • Link to News (ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস)