• টেস্টে বসতে 'না' ৬ ছাত্রীকে, প্রধান শিক্ষিকার চেয়ারে বসে তাণ্ডব অভিভাবকদের!
    প্রতিদিন | ২১ নভেম্বর ২০২৩
  • অর্ণব দাস, বারাকপুর: স্কুলের উপস্থিতির হার অনেক কম। সেই কারণে টেস্টে (Test)বসতে দেওয়া হয়নি ৬ জন ছাত্রীকে। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্ত যে এই পরিণতিতে পৌঁছে দেবে স্কুলের শিক্ষিকাদের, তা কে-ই বা ভেবেছিল' বাস্তবে হলো তেমনটাই। দক্ষিণেশ্বরের (Dakshineswar) সারদাদেবী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ছাত্রীদের টেস্টে বসতে না দেওয়ায় অভিভাবকরা স্কুলে ঢুকে কার্যত তাণ্ডব চালালেন! 'এ কোন ধরনের অসভ্যতা'', প্রধান শিক্ষিকার চেয়ারে বসে পালটা এই প্রশ্ন তুললেন অভিভাবকরা। আর তাঁদের এই কাণ্ডকারখানায় স্কুলের পরিবেশ নিমেষে অশান্ত হয়ে উঠল।

    দক্ষিণেশ্বর সারদাদেবী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের একাদশ শ্রেণির ৬ ছাত্রী ক্লাসে অনিয়মিত অনুপস্থিত। সেই কারণে তাদের টেস্ট পরীক্ষায় বসতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলের এই সিদ্ধান্তের কথা জেনে ভেঙে পড়ে ছাত্রীরা। স্কুলের ভিতরে আত্মহত্যা করার কথা বলতে থাকে তারা। বাড়িতে সেই খবর জানালে স্কুলে ঢুকে অভিভাবকরা (Gurdians) পালটা শিক্ষিকাদের হুমকি দিতে থাকেন বলে অভিযোগ। অভিযোগ, স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার ঘরে ঢুকে প্রধান শিক্ষিকাকেই চেয়ার থেকে তুলে সেই চেয়ারে ছাত্রীদের এক অভিভাবক বসে পড়েন। প্রধান শিক্ষিকা-সহ উপস্থিত শিক্ষিকাদের হুমকি দিতে থাকেন তাঁরা। স্কুলের বাইরে গিয়ে তাঁরা রীতিমতো চিৎকার-চেঁচামেচি করে প্রধান শিক্ষিকাকে কাঠগড়ায় তোলেন।

    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিভাবকদের এই ধরনের 'দাদাগিরি'র নজির কিছুটা ব্যতিক্রমী। এই স্কুলটি কামারহাটি বিধানসভার এলাকার অন্তর্গত।এই ঘটনায় বিধায়ক মদন মিত্রের কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। তবে শিক্ষাঙ্গনে অভিভাবকদের এহেন আচরণ নিয়ে সরব হয়েছে সিপিএম, বিজেপি। সিপিএম (CPM) নেতা প্রদীপ মজুমদার প্রতিক্রিয়া, 'তৃণমূলের আমলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই ধরনের ঘটনা আরও একবার প্রমাণ করে দেয়, রাজ্যে শিক্ষায় তৃণমূলের অপসংস্কৃতি ও অপশাসন চলছে। শিক্ষাদপ্তর পুরোটাই জেলে। তাই শিক্ষাঙ্গনে এই ছবি ছাড়া আর কি-ই বা দেখবে বাংলার মানুষ'' বিজেপি (BJP) নেতা কিশোর কর বলেন, 'শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষিকাদের সঙ্গে অভিভাবকদের এই আচরণ ঘটনা খুবই লজ্জাজনক। অভিভাবকরা যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই ধরনের ঘটনা ঘটান। তাহলে ছাত্রছাত্রীরা কি শিখবে'' গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয় দক্ষিণেশ্বর সারদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে। দক্ষিণেশ্বর থানার পুলিশ স্কুলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

     
  • Link to this news (প্রতিদিন)