• কেরল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের নিয়োগ বাতিল করায় আপাতত স্বস্তিতে আরিফ মহম্মদ 
    দৈনিক স্টেটসম্যান | ১৫ নভেম্বর ২০২২
  • কেরল,১৪ নভেম্বর ' দীর্ঘদিন প্রতীক্ষার পর শেষে হাসি ফুটলো রাজ্যপাল আরিফ মহম্মদের মুখে।কেরলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিয়োগ ঘিরে রাজ্য-রাজভবন সংঘাতে আপাতত স্বস্তি পেলেন। রাজ্যপাল আরিফ মহম্মদের মুখে। আজ রাজ্যের হাইকোর্ট কেরল ইউনিভার্সিটি অফ ফিশারিজ অ্যান্ড ওশান স্টাডিজের উপাচার্যের নিয়োগ বাতিল করে দিয়েছে ।আদালতের বক্তব্য, ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিয়োগে রাজ্য সরকার ইউজিসি’র নিয়ম লঙ্ঘন করেছে।

    রাজ্যপাল আরিফ মহম্মদ খানের জন্য এই রায় স্বস্তির কারণ হয়েছে কারণ অন্য একটি মামলায় সুপ্রিম কোর্ট একই রায় দেওয়ায় আচার্য হিসাবে রাজ্যপাল নয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে পদত্যাগ করতে বলেছিলেন।সেই তালিকায় মৎস্য ও সমুদ্র বিষয়ক পঠনপাঠনে গঠিত বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্যও ছিলেন।

    কিন্তু উপাচার্যরা রাজ্য সরকারের কথায় আচার্যের আদেশ অগ্রাহ্য করে আদালতের দ্বারস্থ হন। সেই মামলা এখনও বিচারাধীন। তবে উপাচার্যদের পদত্যাগের নির্দেশের উপর স্থগিতাদেশ দিয়ে রেখেছে। কেরল হাইকোর্টের আজকের রায়ের পর মনে করা হচ্ছে বাকি আট উপাচার্যেরও একই পরিণতি হতে চলেছে।আজ কেরল হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি এস মণিকুমার এবং বিচারপতি সাজিপি চালির বেঞ্চ বলেছে যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের বিধান হল, উপাচার্য নিয়োগের জন্য তিন বা তার বেশি প্রার্থীর তালিকা আচার্যের কাছে পাঠাতে হবে সরকারের তরফে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে সেই পথে না হেঁটে রাজ্য সরকার ড. কে রিজি জনকে ওই পদে বসায়। এই নিয়োগ অবৈধ।  
  • Link to this news (দৈনিক স্টেটসম্যান)