• উত্তরাখণ্ড থেকে কফিনবন্দি হয়ে বাড়ি ফিরল ৫ বাঙালি অভিযাত্রীর মৃতদেহ
    বর্তমান | ২৯ অক্টোবর ২০২১
  • কলকাতা, ২৮ অক্টোবর:  উত্তরাখণ্ডে ট্রেক শেষে বাড়ি ফেরার কথা ছিল তাঁদের। কেই বা জানত এটাই শেষ ফেরা হবে সাগর, প্রীতম রায়দের? পরিজনদের কাছ থেকে তাঁদের কেড়ে নিল প্রবল তুষারপাত। আজ, বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ি ফিরেছে উত্তরাখণ্ডের বিপর্যয়ে মৃত ৫ ট্রেকারের কফিনবন্দি নিথর দেহ। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা ২০ এবং ৭টা ২০ নাগাদ দিল্লি থেকে দেহ নিয়ে রওনা দেয় বিমানে। গত ১০ অক্টোবর উত্তরাখণ্ডের খারকিয়া থেকে বাগেশ্বর ,জাটুলি, দেবীকুণ্ড, নাগকুণ্ড হয়ে কানাকাটা পাসে ট্রেকিংয়ে গিয়েছিলেন সাগর দাসেরা। কিন্তু প্রবল বৃষ্টি ও তুষার ঝড়ের কবলে পড়ে আটকে যান সুন্দরডুঙ্গা হিমবাহের কাছে। এতদিন আবহাওয়া খারাপ থাকার বারবার ব্যাহত হচ্ছিল তাদের উদ্ধারকাজ। পরে সেই সুন্দরডুঙ্গা হিমবাহের কাছেই পাওয়া যায় পাঁচ ট্রেকার নিথর দেহ। বেশ কয়েকদিন ধরেই নিখোঁজ থাকার পর প্রীতম রায়, সাধন বসাক, সাগর দে, সরিতশেখর দাস এবং চন্দ্রশেখর দাসের মৃত্যুর খবর পেয়েছিল পরিবার। তার পর থেকেই প্রিয়জনদের শেষবারের মতো দেখার জন্য আকুল ছিলেন পরিবারের সদস্যরা। সেখানেই হাজির হয়েছিল রাজ্যের দুই মন্ত্রী। এঁদের মধ্যে রয়েছেন হাওড়া বাগনানের তিন তরুণ সরিতশেখর দাস, চন্দ্রশেখর দাস ও সাগর দে। রানাঘাটের বাসিন্দা প্রীতম রায় ডাক্তারি পড়ুয়া। আগামী বছরই ডাক্তারি পাশ করতেন তিনি। আর সাধন বসাক ঠাকুরপুকুরের বাসিন্দা। এদিকে, কলকাতা বিমানবন্দরে পৌঁছন দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু, মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস। সুজিত বসু বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে এসেছি। আজ ৫ জনের মৃতদেহ এখান থেকে পৌঁছে দেওয়া হবে তাঁদের পরিবারের কাছে। খুবই দুঃখজনক ঘটনা।’ এই ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাসও।

     
  • Link to this news (বর্তমান)