• স্কুলে যাওয়ার পথে ট্যাঙ্কারে পিষ্ট পড়ুয়া
    বর্তমান | ২৫ নভেম্বর ২০২২
  • নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: দিদির স্কুটারে চেপে স্কুলে যাওয়ার পথে তেলের ট্যাঙ্কারের ধাক্কায় মৃত্যু হল এক ছাত্রর। মৃতের নাম অঙ্কিত সাহানি (৮)। সে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ত। বৃহস্পতিবার এনজেপি থানার জাবরাভিটায় এই মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এর প্রতিবাদে দিনভর রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান বাসিন্দারা। তাঁরা বেহাল রাস্তা মেরামত ও বেপরোয়াভাবে তেলের ট্যাঙ্কার চলাচল বন্ধের দাবি তুলেছেন। এনিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে আলোচনা করে পরিস্থিতি সামাল দেন পুলিস অফিসাররা। তাঁরা এলাকার ট্রাফিক ব্যবস্থা ঢেলে সাজার আশ্বাস দিয়েছেন।

    শিলিগুড়ি শহরের জাবরাভিটায় অঙ্কিতদের বাড়ি। সে নেতাজি বয়েজ স্কুলের মর্নিং সেকশনের তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ত। দিদির স্কুটারে চেপে স্কুলে যাওয়ার সময় পথ দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়। স্থানীয়দের একাংশ বলেন, জাবরাভিটা ভিআইপি রোড দিয়ে যাওয়ার সময় তেলের ট্যাঙ্কারের সঙ্গে ধাক্কা লাগে স্কুটারের। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে স্কুটার থেকে অঙ্কিত রাস্তায় পড়ে যায়। তখনই ওই ট্যাঙ্কারের চাকায় পিষ্ট হয়ে অঙ্কিতের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মৃত ছাত্রের দিদিও জখম হয়েছে। স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। বেপরোয়াভাবে তেলের ট্যাঙ্কার  চলাচল করায় ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে তাঁদের অভিযোগ।

    কেউ কেউ আবার এই পথদুর্ঘটনার জন্য রাস্তার বেহাল অবস্থাকে দায়ী করেছেন। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে এনজেপি থানার পুলিস। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। বিকেলের মধ্যে পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দেওয়া হয় মৃতদেহ।  পাশাপাশি, তারা ঘটনাস্থল থেকে ওই তেলের ট্যাঙ্কার ও স্কুটারটি বাজেয়াপ্ত করেছে। ডিসিপি ট্রাফিক অভিষেক গুপ্তা বলেন, ওই পথ দুর্ঘটনা গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ জানতে ঘটনাস্থলের আশপাশ এলাকার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর এ ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তবে, ওই তেলের ট্যাঙ্কার আটক করা হয়েছে। চালকের খোঁজ চলছে।

    এনজেপি থানার দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকাগুলির মধ্যে জাবরাভিটা একটি। হামেশাই সেখানে পথ দুর্ঘটনা ঘটে। তাই এদিনের ঘটনার পর স্থানীয় বাসিন্দারা রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। তাঁদের একাংশ পুলিস ও প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ঘটনাস্থল অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। পুলিসের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের একাংশের বচসা বাধে। দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ চলায় ঘটনাস্থলের দু’পাশে যানবাহনের লম্বা লাইন পড়ে যায়। ফলে, সংশ্লিষ্ট রাস্তা ও ইস্টার্ন বাইপাস সহ আশপাশের রাস্তায় তীব্র যানজট হয়। ডিসিপি ট্রাফিক ছাড়াও শিলিগুড়ি পুলিসের এসিপি (পূর্ব) শুভেন্দর কুমার ঘটনাস্থলে যান। তাঁরা বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে আলোচনা করে পরিস্থিতি সামাল দেন।

    বিক্ষোভকারীদের বক্তব্য, দীর্ঘদিন ধরে এই রাস্তার দশা বেহাল। এ ব্যাপারে পুলিস ও প্রশাসনের কাছে বারবার দাবি জানিয়েও লাভ হয়নি। তাছাড়া, এই রাস্তা দিয়ে বেপরোয়াভাবে তেলের ট্যাঙ্কার ও ট্রাক চলাচল করলেও পুলিসের হেলদোল নেই। তাঁদের অভিযোগ, পুলিস ও প্রশাসনের নজরদারির অভাবে বেহাল রাস্তা দিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে তেলের ট্যাঙ্কার। এর জেরে রাস্তাটি বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে। ডিসিপি ট্রাফিক অবশ্য বলেন, যান নিয়ন্ত্রণে শহরের বিভিন্ন এলাকায় নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। সংশ্লিষ্ট এলাকার ট্রাফিক ব্যবস্থা আরও চাঙ্গা করা হবে। রাস্তায় গার্ডরেল বসানো, বেশ কয়েকজন ট্রাফিক পুলিস মোতায়েন করা এবং ভ্রাম্যমান বাহিনী এলাকার উপর নজর রাখবে। সেখানে সিসিক্যামেরা বসানোরও পরিকল্পনা রয়েছে।
  • Link to this news (বর্তমান)