• ৮ ডিসেম্বর মার্গশীর্ষ পূর্ণিমা, জেনে নিন এই দিন স্নান দান পূজা বিধির ভূমিকা
    হিন্দুস্তান টাইমস | ২৫ নভেম্বর ২০২২
  • মার্গশীর্ষ হিন্দু ক্যালেন্ডারের নবম মাস এবং হিন্দু শাস্ত্র অনুসারে এটিদানের জন্য পরিচিত মাস। মার্গশীর্ষ মাসেরপূর্ণিমার দিনটি মার্গশীর্ষ পূর্ণিমা হিসাবে পালিত হয়। পুরাণে এই মাসকে বলা হয়েছে'মাসোনাম মার্গশীর্ষোহম' অর্থাৎ মার্গশীর্ষের চেয়ে শুভ আর কোনো মাস নেই। এই দিনে ভক্তরা পবিত্র নদীতে স্নান করে এবং পরম ভক্তি সহকারে ভগবান বিষ্ণুর পূজা করে।

    মার্গশীর্ষ পূর্ণিমার দিনে দত্তাত্রেয় জয়ন্তী পালিত হয়। ভগবান দত্তাত্রেয় ত্রিমূর্তি অবতার (ব্রহ্মা, বিষ্ণু ও মহেশ) নামে পরিচিত।৮ ডিসেম্বর২০২২-এ মার্গশীর্ষ পূর্ণিমা পড়ছে। এই দিনে উপবাস ও উপাসনার বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। আসুন জেনে নিইএইপূর্ণিমা তিথি,রগুরুত্ব ও পূজার পদ্ধতি।

    মার্গশীর্ষ পূর্ণিমা তিথি

    মার্গশীর্ষ পূর্ণিমা: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২সকাল৮.০১ এ

    পূর্ণিমা শেষ :৮ ডিসেম্বর ২০২২ সকাল০৯.৩৭ এ

    মার্গশীর্ষ পূর্ণিমার তাৎপর্য

    শাস্ত্রে পূর্ণিমার দিনে দান করা অত্যন্ত ফলদায়ক বলা হয়েছে। এই দিনে গঙ্গা নদীতে ধ্যান ও স্নান করাও লাভকারী বলে মনে করা হয়। মার্গশীর্ষ পূর্ণিমার এই শুভ উপলক্ষ্যে, তাদের আশীর্বাদ পেতে শ্রী হরি বিষ্ণু এবং ভগবান শিবের পূজা করা উচিত।

    মার্গশীর্ষ পূর্ণিমার উপবাসের পদ্ধতি

    মার্গশীর্ষ পূর্ণিমার দিনে ব্রহ্ম মুহুর্তে ঘুম থেকে উঠে স্নান করে উপবাস করা উচিত।

    স্নানএর জলেতুলসী পাতা রেখে তারপর স্নান করুন। পবিত্র নদীতে স্নান করলে ভালো হয়।

    স্নানের পর সূর্যকে অর্ঘ্য নিবেদন করুন।

    এর পরে সূর্যপ্রণামমন্ত্রটি জপ করুন এবং পরিষ্কার পোশাক পরিধান করুন।

    এই দিনঅভাবগ্রস্তকে খাদ্য ও বস্ত্র দান করা অত্যন্তশুভ।

    রাতে চাঁদকে অর্ঘ্যনিবেদন করুন।

    মার্গশীর্ষ পূর্ণিমার দিনে উপবাসরাখা হয় চন্দ্র দেবতাকে খুশি করতে এবং মানসিক শান্তি পেতে।
  • Link to this news (হিন্দুস্তান টাইমস)