• ISL Derby: ‌বৌমাস জাদুতেই জয় দেখছে সবুজ–মেরুন সদস্যরা, পেরোসেভিচকে নিয়েই স্বপ্ন লাল–হলুদ সদস্যদের 
    আজকাল | ২৫ নভেম্বর ২০২১
  • রজত বসু:‌ হুগো বৌমাস না পেরোসেভিচ। রয় কৃষ্ণা নাকি ড্যানিয়েল চিমা। শনি রাতে শেষ হাসি কার?‌ 

    শনিবার মরশুমের প্রথম ডার্বি। গোয়ার তিলক ময়দানে আমনে সামনে এটিকে–মোহনবাগান ও শ্রী সিমেন্ট ইস্টবেঙ্গল। টগবগ করে ফুটছে দুই ক্লাবের সদস্যরা।

    আপশোস একটাই। ইস্‌ ম্যাচটা যদি কলকাতায় হত। আবেগ থাকত সদস্য–সমর্থকদের মধ্যে আরও বেশি। মোহনবাগান সদস্য শমীক দত্তগুপ্ত বলছিলেন, ‘‌বড় ম্যাচ মানেই একটা অন্য আবেগ। অন্য খেলা।’‌ কে এগিয়ে?‌ শমীকের জবাব, ‘‌এই ম্যাচ বরাবরই ৫০–৫০। তবে মোহনবাগান ভারে এগিয়ে। যদি নিজেদের স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারে, জিতে যাবে আমাদের প্রিয় দল।’‌ পার্থক্য গড়ে দিতে পারে কে?‌ হুগো বৌমাসের নামটাই উঠে এল। শমীকের যুক্তি, ‘‌এই মানের ফুটবলার ভারতে খুব কম এসেছে। ইপিএল কিংবা বিদেশের নামী লিগে খেলার যোগ্যতা রয়েছে বৌমাসের। গতবার ছিল মুম্বইতে। ওর কাছেই আমরা বারবার আটকেছি। এবার ও আমাদের দলে। সঙ্গে কৃষ্ণা রয়েছে। তাই গোল করা নিয়ে ভাবনা নেই।’‌ ইস্টবেঙ্গল নিয়ে শমীকের বিশ্লেষণ, ‘‌পেরোসেভিচ ছাড়া কাউকে দেখতে পাচ্ছি না। যে আমাদের বিপদে ফেলতে পারবে। ম্যাচটা আমাদেরই জেতা উচিত।’‌ লাল–হলুদের রবিশঙ্কর সেন আবার বলেই দিচ্ছেন, ‘‌বড় ম্যাচে আমরাই এগিয়ে। আমাদের চিমা ও পেরোসেভিচ রয়েছে। গোলে আছে অরিন্দম। মাঝমাঠ থেকে ঠিকঠাক বলের সাপ্লাই এলে ম্যাচটা আমাদের।’‌ 

    সবুজ–মেরুনের আর এক সদস্যর গলায় ঝড়ে পড়ছে আপশোস। ম্যাচটা কলকাতায় হচ্ছে না। ফলে টিভিতেই রাখতে হবে চোখ। মাঠে যাওয়ার উপায় নেই। তবে ওই সদস্যর কথায়, ‘‌করোনা আবহে অনেককিছুই বদলে গেছে। ডার্বির একটা উত্তেজনা তো থাকেই। চাইব যেখানেই খেলা পড়ুক। আমরা যেন জিতি।’‌ তবে বাগানের এই সদস্য এটিকের সঙ্গে এই মার্জার এখনও মানতে পারছেন না। তাঁর কথায়, ‘‌নিজস্বতাটাই যেন হারিয়ে গেছে।’‌ তবে শনিবারের বড় ম্যাচ প্রসঙ্গ আসতেই একেবারে অন্য সুর, ‘‌হুগো বৌমাস রয়েছে। হিসেব উল্টে দেবে। সঙ্গে কৃষ্ণা তো আছেই। রক্ষণটা আমাদের একটু কমজোরি। তবে আক্রমণ দিয়ে তা পুষিয়ে দেওয়া উচিত।’‌ বাগান সদস্য শমীক যেমন বলছেন, ‘‌যদি পরের পর্বে দর্শক অনুমতি মেলে তো, গোয়া যাওয়ার ভাবনা রয়েছে।’‌ একই সুর শোনা গেল ইস্টবেঙ্গল সদস্য রবিশঙ্করের গলায়। বলে দিলেন, ‘‌যদি পরের পর্বে দর্শক অনুমতি মেলে তো, গোয়া যাওয়ার পরিকল্পনা করেই রেখেছি।’‌ 
  • Link to this news (আজকাল)