• একশো দিনের কাজে দুর্নীতি রুখতে উদ্যোগপ্রতি মাসে ১৫টি প্রকল্প পরিদর্শন
    বর্তমান | ২৬ নভেম্বর ২০২১
  • সুমন তেওয়ারি ,আসানসোল : একশো দিনের প্রকল্পে দুর্নীতি রোধে কড়া অবস্থান নিল রাজ্য সরকার। রাজ্য থেকে জেলাগুলিতে এই কাজে অ্যাপ নির্ভর নজরদারি বাড়ানোর উপর বাড়তি জোর দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের তৈরি অ্যাপকে কাজে লাগানো হচ্ছে। ‘এরিয়া অফিসার অ্যাপ’ নামে এই অ্যাপের মাধ্যমেই জেলা প্রকল্প আধিকারিক ও সংশ্লিষ্ট ব্লকের বিডিওদের প্রতি মাসে ১৫ টি প্রকল্প পরিদর্শন করতে বলা হয়েছে। কাজ খতিয়ে দেখে অ্যাপের মাধ্যমে সেই তথ্য তাঁদের আপলোড করতে হবে। অ্যাপটি রিয়েল টাইম ও রিয়েল লোকেশন অনুযায়ী কাজ করবে। অর্থাৎ নির্দিষ্ট সময়ে প্রকল্প এলাকায় গিয়েই এই অ্যাপের তথ্য আপলোড করা যাবে। প্রকল্প এলাকায় গিয়ে সরেজমিনে কাজ খতিয়ে দেখে এলাকা থেকেই ১৭টি প্রশ্নের উত্তর, ছবি সব তুলে ধরতে হবে আধিকারিকদের। এর জেরে দুর্নীতিতে অনেকটাই লাগাম টানা যাবে বলে প্রশাসনের আশা। একশো দিনের প্রকল্পের পশ্চিম বর্ধমানের জেলা প্রকল্প আধিকারিক রাজীব মণ্ডল বলেন, আমাদের জেলায় ইতিমধ্যেই অ্যাপের মাধ্যমে নজরদারি শুরু হয়ে গিয়েছে। বিভিন্ন ব্লকের বিডিওরাও তথ্য আপলোড করছেন অ্যাপে। কোনও অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না। 

    একশো দিনের প্রকল্প নিয়ে ইতিমধ্যেই নজির গড়েছে রাজ্য সরকার। কেন্দ্রের দেওয়া লেবার বাজেট ইতিমধ্যেই ছাপিয়ে গিয়েছে তারা। কিন্তু সাম্প্রতিককালে একশো দিনের কাজ নিয়ে রাজ্যজুড়ে বেশ কিছু এলাকায় বেনিয়মের অভিযোগ সামনে এসেছিল। প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের পক্ষ থেকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে যে পরিদর্শন হয়েছিল, সেখানে রাজ্যের ন’টি জেলার কাজ নিয়ে উষ্মাপ্রকাশ করে কেন্দ্রীয় টিম। এমনকী কাজের সঙ্গে নথির অনেক পার্থক্য ধরা পড়ে। একশো দিনের প্রকল্প নিয়ে দেশের মধ্যে যেখানে ভালো কাজের শিরোপা জুটছে, সেখানে কোনও এলাকার বেনিময় যাতে সাফল্যকে কালিমালিপ্ত না করতে পারে, সেজন্য এবার বাড়তি সতর্ক রাজ্য। উৎসবের মরশুমের পরেই এনিয়ে প্রতিটি জেলাকে কড়া নির্দেশিকা দিয়েছে। ওই নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছে, এবার বিডিওদেরও নিজের এলাকায় মাসে ১৫টি করে প্রকল্প পরিদর্শন করতে হবে। সেই মতো অ্যাপে প্র঩ত্যেক বিডিওর ফোন নম্বর আপডেট করা হয়। এবার প্রকল্প এলাকায় গিয়ে কেন্দ্রের দেওয়া ১৭টি চোখা চোখা প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে আধিকারিককে। যেমন কতজন সদস্য কাজ করছেন, কাজের বোর্ডে সব তথ্য ঠিক দেওয়া আছে কি না, কাজে তিনি কতটা সন্তুষ্ট এবার আধিকারিকের মোবাইল থেকে সেই তথ্য পাঠানো হবে মন্ত্রকে। প্রকল্প নিয়ে বাড়তি দায়িত্ব নিতে হচ্ছে আধিকারিকদের। শুধু আধিকারিকরা নয়, জেলা প্রকল্প আধিকারিকদেরও আলাদা ভাবে ১৫টি প্রকল্প পরিদর্শন করে একইভাবে তথ্য আপলোড করতে হচ্ছে। পশ্চিম বর্ধমান জেলায় ইতিমধ্যেই চারটি ব্লকেও এই কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। বাকি ব্লকেও এই নজরদারি দ্রুত চালু হবে। তেমনই রাজ্যের সর্বত্র এই ধরনের নজরদারি শুরু হয়েছে। এতে অনিয়মে রাশ টানা অনেকটাই সহজ হবে বলে মনে করছেন আধিকারিকরা।  
  • Link to this news (বর্তমান)