• অসমে গোষ্ঠী সংক্রমণ, জানিয়ে দিলেন হিমন্ত
    আজকাল, 06 July 2020
  • আজকালের প্রতিবেদন

    বন্যায় হাবুডুবু খাচ্ছে অসম। সঙ্গে করোনার দুর্ভোগ। অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলে দিলেন, রাজ্যে করোনার সংক্রমণ তৃতীয় পর্যায়ে চলে গেছে। তার মানে গোষ্ঠী সংক্রমণ!‌ করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা নিয়েও অসম সরকারের কড়া সমালোচনা করেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ। অসমের বন্যা সমস্যার স্থায়ী সমাধানের নির্দেশ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কিন্তু তাঁর প্রতিশ্রুতিকে ‘‌মিছা কথা’‌ বলে উড়িয়ে দেন তরুণ গগৈ। তিনি বলেন, ভোট এলেই বিজেপি–‌র এটাই বুলি। কিন্তু কাজের কাজ কিছু করে না। উল্লেখ্য, অসমে ভোট আগামী বছর, বাংলার সঙ্গেই। 

    জনসংখ্যার দিক থেকে বাংলার থেকে অনেক ছোট হলেও অসমে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ১২০২। পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে রাজ্য সরকার। গত সোমবার থেকে ১৪ দিন টোটাল লকডাউনের ঘোষণা করা হলেও এখন আবার শুরু হয়েছে আনলক প্রক্রিয়া। বিরোধীদের অভিযোগ, রাজ্য সরকারের পরিকল্পনার অভাবেই বাড়ছে মানুষের দুর্ভোগ। রাজ্যে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশছোঁয়া। রোজগার বন্ধ। বিরোধীদের অভিযোগ, করোনা নিয়ে প্রচারেই শুধু রয়েছে সরকার। কোনও সাহায্য মিলছে না।

    এরই মধ্যে রাজ্যের বিস্তীর্ণ এলাকা বানভাসি। চলতি মরশুমে এখনও পর্যন্ত ৬১ জন প্রাণ হারিয়েছেন। রবিবার বন্যা পরিস্থিতির একটু উন্নতি হলেও ৩৩টি জেলার মধ্যে ১৮টি এখনও জলমগ্ন। হাজার হাজার মানুষ লকডাউনের মধ্যেই ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছেন। অপর্যাপ্ত ত্রাণের অভিযোগ উঠছে। বন্যা মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের ভূমিকার কড়া সমালোচনা করেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ। কংগ্রেস নেতার মতে, বিজেপি কথায় আছে, কাজে নেই। তিনি স্মরণ করিয়ে দেন, ২০১৪ ও ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটে এবং ২০১৬–‌র বিধানসভা ভোটে বন্যা পরিস্থিতির স্থায়ী সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু কিছুই করেনি। বিধানসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে ফের মানুষকে বিজেপি বোকা বানাতে চাইছে, অভিযোগ গগৈয়ের।‌‌
  • Link to News (আজকাল)