• দিদির দূত হয়ে গিয়ে স্থানীয়দের সমস্যা জেনেছিলেন, সমাধান করলেন পাঁচ দিনের মাথায়
    আজকাল | ২৬ জানুয়ারি ২০২৩
  • মিল্টন সেন, হুগলি: দিন পাঁচেক আগেই দিদির সুরক্ষা কবচ কর্মসূচিতে গিয়ে পানীয় জল নিয়ে ক্ষোভের মুখে পরেছিলেন দিদির দূত খোদ বিধায়ক নিজেই।

    স্থানীয়দের ক্ষোভের মুখে পরে বিন্দু মাত্র ধৈর্য হারাননি। অভিযোগ শুনে ফিরে এসেছিলেন। তবে থেমে যান নি, সমাধান সূত্র খুঁজে বের করার ক্রমাগত চেষ্ঠা চালিয়েছেন। বুধবার জনস্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তরের ইঞ্জিনিয়ারকে সেই এলাকায় গিয়ে পৌঁছলেন বিধায়ক। চললো পরীক্ষা নিরীক্ষা। অবশেষে কথা দিলেন এক মাসের মধ্যে জল পাবেন গ্রামবাসীরা।

    বিভিন্ন জায়গায় দিদির দূতেরা ক্ষোভের মুখে পড়া নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, 'সমস্যা থাকলে নিশ্চই বলবেন, সমাধান হবে'। গত ২০ জানুয়ারী দেবানন্দপুরে গিয়ে পানীয় জল নিয়ে বাসিন্দাদের ক্ষোভের মুখে পরতে হয়েছিল চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদারকে।গ্রামবাসীদের অভিযোগ ছিল পাঁচ বছর হয়ে গেল জলের লাইন পৌঁছেছে বাড়ি বাড়ি। জলের লাইনের জন্য চার হাজার একশ টাকা করে দিয়েছেন সকলেই। পাইন লাইন বসানো হয়েছে, কিন্তু জল মেলেনি। শুরুতে কিছু জায়গায় জল পাওয়া গেলেও তা খুবই সামান্য সময়ের জন্য। ক্ষোভের মুখে পরে মালিক পাড়া গ্রামে পানীয় জল নিয়ে হাহাকার আছে, তা মেনেও নিয়েছিলেন বিধায়ক। ঠিক তার পাঁচ দিনের মাথায়, পি এইচ ই দপ্তরের ইঞ্জিনিয়ারকে নিয়ে দেবানন্দপুরের সেই গ্রামে যান বিধায়ক। সমস্যা কোথায় তা বোঝার চেষ্টা করেন। বেরিয়ে আসে সমাধান সূত্র। তারপর বাসিন্দাদের কথা দেন এক মাসের মধ্যেই সকলে জল পাবেন। বিধায়ক অসিত মজুমদার জানিয়েছেন, পি এইচ ই দপ্তর থেকে পানীয় জলের পাম্প করে দিয়েছিলেন তৎকালীন মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। তার পরেই এলাকার জলের সমস্যা মেটাতে পঞ্চায়েতের উদ্যোগে কয়েকটি পাম্প বসানো হয়। সেই পাম্প গুলো যারা চালায় তাদের গাফিলতি নজরে পড়েছে। বিষয়টা আগে তিনি জানতেন না। মানুষ জানিয়েছে। এ জন্যই তো দিদির দূত। মোদ্দা কথা মানুষকে জল দিতে হবে। এক মাসের মধ্যে যাতে গ্রাম বাসীরা জল পায় সেই চেষ্টা করেছেন। অভিযোগ জানার পরই  পিএইচিই'র আধিকারিক পৌঁছেছে। মানে যে বিষয়টা গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। বিধায়কের পরিষ্কার কথা, পঞ্চায়েতের কোনও কর্মীর জন্য যদি সাধারণ মানুষ জল না পায়, তাহলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পিএইচই'র ইঞ্জিনিয়ার অনুপম চক্রবর্তী বলেন, কয়েকটা জায়গায় জল পাননি বাসিন্দারা। বড় প্রকল্প, আশা করা যায় দ্রুত সমস্যা মিটে যাবে।
  • Link to this news (আজকাল)