• মাদক-কাণ্ড: নাম না করে কঙ্গনাকে তোপ জয়ার, পাল্টা জবাব অভিনেত্রীর
    বর্তমান, 16 September 2020
  • মুম্বই: অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর বলিউডে মাদক-যোগ নিয়ে তুমুল তরজা চলছেই। তার আঁচ পড়ল এবার সংসদের বাদল অধিবেশনেও। সম্প্রতি, মাদককাণ্ড নিয়ে বারবার সরব হয়েছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। বলিউডকে ‘নর্দমা’ বলেও কটাক্ষ করেছেন তিনি। একইসুরে মাদক-যোগ নিয়ে সংসদে দাঁড়িয়ে বক্তব্য পেশ করেছিলেন বিজেপি সাংসদ তথা অভিনেতা রবি কিষাণও। এর প্রেক্ষিতে সংসদের অধিবেশনের নাম না করে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানালেন অভিনেত্রী তথা সমাজবাদী পার্টির সাংসদ জয়া বচ্চন। তিনি বলেন, ‘যাঁরা এই ইন্ডাস্ট্রি থেকে নিজেদের পরিচিতি তৈরি করেছেন, তাঁরাই এখন বলিউডকে ‘নর্দমা’ বলছেন। এই ধরনের মন্তব্য কখনই সমর্থনযোগ্য নয়।’ এরপরই প্রচলিত একটি প্রবাদকে হাতিয়ার করে জয়ার মন্তব্য, ‘এঁরা যে পাত্রে খান, সেই পাত্রকেই ফুটো করছেন। কয়েকজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠছে বলেই গোটা ইন্ডাস্ট্রিকে অপমান করা ঠিক নয়।’

    জয়ার এই মন্তব্য শোনার পর চুপ থাকেননি কঙ্গনাও। পাল্টা তোপ দেগেছেন তিনি। ট্যুইটারে অভিনেত্রী লেখেন, ‘জয়াজী, আমার মতো আপনার মেয়ে শ্বেতাকেও যদি কমবয়সে মারধর করা হত, মাদক খাইয়ে ধর্ষণ করা হত, তা হলেও কি আপনি একই কথা বলতেন? কিংবা অভিষেকও যদি দিনের পর দিন হেনস্তার শিকার হয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করতে হতো, তখনও কি আপনি একই অবস্থান নিতেন? দয়া করে আমাদের সঙ্গে সহমর্মিতা দেখান।’

    সোমবার এই মাদককাণ্ডে সরব হয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ রবি কিষাণ। বলিউডেও যে মাদক কারবারিরা জাঁকিয়ে বসেছে, সংসদে দাঁড়িয়ে সেকথা কার্যত স্বীকার করে নেন তিনি। এদিন তাঁকেও এক হাত নিয়েছেন সপা সাংসদ। জয়া বলেন, ‘গতকাল বলিউডের সদস্য হয়েও একজন সাংসদ এই নিয়ে কথা বলেছেন। আমি তার কড়া নিন্দা করছি।’

    এদিন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী একযোগে কঙ্গনা ও রবি কিষাণকে আক্রমণ করায় খুশি বলিউডের একাংশ। দৃঢ়ভাবে বিনোদন জগতের কথা সংসদে তুলে ধরার জন্য জয়ার প্রশংসা করেছেন তাঁরা। সেই তালিকায় রয়েছেন পরিচালক অনুভব সিনহা থেকে শুরু করে অভিনেত্রী তাপসী পান্নু, সোনম কাপুর সহ আরও অনেকেই।

    এদিকে, দিন কয়েক আগে কঙ্গনার বান্দ্রার পালি হিলসের অফিসের বেআইনি অংশ ভেঙে দিয়েছিল বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন (বিএমসি)। ওই ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হওয়ার পর এবার ক্ষতিপূরণ চেয়ে মুম্বই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন অভিনেত্রী। আদালতে এই নিয়ে একটি হলফনামা জমা দিয়েছেন তিনি। কঙ্গনা আদালতে জানিয়েছেন, পালি হিলসের বাংলোর প্রায় ৪০ শতাংশ ভেঙে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে দুষ্প্রাপ্য বেশ কিছু সামগ্রী ক্ষতি হয়েছে। তাই বিএমসিকে ২ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হোক। অন্যদিকে, শিবসেনা-কঙ্গনা সংঘাত ক্রমশ বেড়েই চলেছে। এদিন শিবসেনার মুখপাত্র ‘সামনা’য় ফের কঙ্গনার সমালোচনা করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় বহু মানুষই দায়িত্বজ্ঞানহীন। ভুলভাল না বকে, তাঁরা কি একটু পরিণতি বোধ দেখাবেন?’
  • Link to News (বর্তমান)