• ঘাসফুল শিবিরে পা বাড়াচ্ছেন প্রণব-পুত্র! জোর জল্পনা
    এই সময়, 11 June 2021
  • এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক : রাজনীতির সঙ্গে দল বদলের ঘটনা ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তবে কি এবার এই পথে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়-পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ও! বুধবার তৃণমূলের একঝাঁক শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ের চা-চক্র ঘিরে রাজনৈতিক মহলে এমনই জল্পনা ছড়িয়েছে। জেলার রাজনৈতিক মহলে এখন একটাই প্রশ্ন ভাসছে, তবে কি প্রণব-পুত্রও শিবির বদল করে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন?

    জল্পনা একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যায় না। কারণ গত লোকসভা নির্বাচনে জঙ্গিপুর কেন্দ্রে যাঁর কাছে পরাজিত হয়েছেন, তৃণমূলের সেই খলিলুর রহমানের সঙ্গে কোলাকুলি করেন জঙ্গিপুরের প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ। তাঁদের সেই কোলাকুলির ছবি বর্তমানে ভাইরাল। এছাড়া ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পর থেকে জঙ্গিপুরের সঙ্গে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ের যোগাযোগ তলানিতে এসে ঠেকেছিল। সম্প্রতি জঙ্গিপুরে তাঁর যাতায়াত বেড়েছে।

    অন্যদিকে রাজনীতির কারবারিরা বলছেন, একুশের ভোটযুদ্ধে সমগ্র রাজ্যের পাশাপাশি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর গড়েও ধূলিসাৎ হয়ে গিয়েছে কংগ্রেস। একটি আসনও জিততে পারেনি। যা স্বাধীনতার পরে প্রথমবার ঘটল। ফলে রাজ্যে কংগ্রেসের অস্তিত্ব নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। এমতাবস্থায় মুর্শিদাবাদের পাঁচবারের কংগ্রেস বিধায়ক মইনুল হকও কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন বলে সূত্রের খবর। দলবদল নিয়ে তৃণমূলের সঙ্গে তাঁর নাকি আলোচনাও চলছে। যদিও সনটাই জল্পনা। ফলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ও দল বদল করতে চাইলে সেটা অসম্ভব কিছু নয় বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

    জানা গিয়েছে, বজ্রাঘাতে মৃতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে বুধবার মুর্শিদাবাদে গিয়েছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তখনই তাঁর সঙ্গে দেখা করেন আবু তাহের খান, খলিলুর রহমান, আখরুজ্জামান সহ জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। তারপরই তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি তথা মুর্শিদাবাদের সাংসদ আবু তাহের খান স্বয়ং অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়কে ফোন করে তাঁর বাড়িতে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। অভিজিতও তাঁদের আমন্ত্রণ জানান। তারপরই রঘুনাথগঞ্জের দেউলিতে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ের বাসভবনে হাজির হন আবু তাহের খান সহ সাংসদ খলিলুর রহমান, দুই প্রতিমন্ত্রী আখরুজ্জানান ও সাবিনা ইয়াসমিন। এছাড়া সুতির বিধায়ক ইমানি বিশ্বাস, সামশেরগঞ্জের প্রাক্তন বিধায়ক আমিরুল ইসলাম, তৃণমূল নেতা মহম্মদ সোহরাবও ওই চা চক্রে হাজির ছিলেন। এঁরা অবশ্য সকলেই প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিলেন।

    তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের মুর্শিদাবাদ সফরের পরই জেলা তৃণমূলের নেতৃত্বের তরফে ভিন্ন দল হওয়া সত্ত্বেও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির তনয়কে ফোন করে তাঁর বাড়িতে যাওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ এবং একদা প্রতিদ্বন্দ্বীর সঙ্গে জঙ্গিপুরের প্রাক্তন সাংসদের কোলাকুলির ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই রাজনৈতিক মহলে জল্পনা বেড়েছে। যদিও ঘাস-ফুল শিবির ও জঙ্গিপুরের প্রাক্তন সাংসদ- উভয় পক্ষ থেকেই এই জল্পনা উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তৃণমূল নেতৃত্বের সঙ্গে চা-চক্র নিছকই ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’ দাবি করে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘আবু তাহের ফোন করে জানান, তিনি আমার বাড়িতে চা খেতে আসছেন। আমিও তাঁকে আসতে বলি। আবু তাহের জানান, তাঁর সঙ্গে দলের আরও অনেকে আসছে। আমি সকলকেই আমন্ত্রণ জানাই। তখন তাঁরা বাড়িতে আসেন।’ যাঁরা এসেছিলেন তাঁদের প্রত্যেকের সঙ্গে তাঁর ব্যক্তিগত সম্পর্ক ভালো বলেও দাবি প্রণব-পুত্রের। তিনি বলেন, ‘কেউই বাবার শ্রাদ্ধে যেতে পারেননি। ফলে প্রত্যেকে বাড়িতে এসে বাবা-মায়ের ছবিতে শ্রদ্ধা জানান। তারপর চা-পর্ব শেষে চলে যান। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই।’ অন্যদিকে, আবু তাহের খানও বলেন, ‘এটা নিছক সৌজন্য সাক্ষাৎ।’

    তবে সাম্প্রতিককালে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের সাক্ষাৎ এটাই প্রথম নয়। গত কয়েকদিন ধরেই অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় রঘুনাথগঞ্জের দেউলির বাসভবনে রয়েছেন। গত সোমবার সেখানে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন রঘুনাথগঞ্জের বিধায়ক তথা বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী আখরুজ্জামান। এর কয়েকদিন আগে নওদার এক অনুষ্ঠানেও অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে জঙ্গিপুরের বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতাকে দেখা গিয়েছে। পরপর এই সমস্ত ঘটনা থেকেই রাজনৈতিক মহলের অনুমান, এবার হয়ত তৃণমূল শিবিরেই পা বাড়াচ্ছেন প্রণব-পুত্র।
  • Link to News (এই সময়)