• এই প্রথম CAA-আবেদনে 'নাগরিকত্ব' পেলেন ১৪ জন, দেওয়া হল সার্টিফিকেট
    Aajtak | ১৬ মে ২০২৪
  • First Set CAA Certificate: নাগরিকত্ব সংশোধন আইন (CAA)-এর অধীনে প্রথম ধাপে ১৪ জন নাগরিকত্ব শংসাপত্র পেলেন। পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশের নির্যাতিত হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি এবং খ্রিস্টান ধর্মের বাসিন্দাদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ডিজিটাল স্বাক্ষর করা শংসাপত্র ইমেলের মাধ্যমে অন্য অনেক আবেদনকারীদের দেওয়া হয়েছে।

    বুধবার, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ​​কুমার ভাল্লা নয়াদিল্লিতে কিছু আবেদনকারীর কাছে নাগরিকত্ব শংসাপত্র হস্তান্তর করেছেন। যারা নাগরিকত্ব পেয়েছেন তাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন।

    বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তান থেকে আসা নির্যাতিত হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি এবং খ্রিস্টান ধর্মালম্বীদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য ডিসেম্বর ২০১৯ সালে সিএএ প্রণয়ন করা হয়েছিল। যারা ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৪ বা তার আগে ভারতে এসেছিলেন। 

    প্রসঙ্গত, Citizenship Amendment Act ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইনে সংশোধন করে, ২০১৯ সালে, দ্বিতীয় বার ক্ষমতায় এসে এটি পাস সকরিয়েছিল কেন্দ্রের মোদী সরকার। ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পর পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান থেকে ধর্মীয় কারণে হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ, পার্সি এবং খ্রীস্টান শরণার্থীদের জন্য। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে, নাগরিকত্ব (সংশোধনী) নিয়ম, ২০২৪ অনুসারে কোনও ব্যক্তি নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করা যাচ্ছে। একটি ওয়েব পোর্টালের মাধ্যমে সম্পূর্ণ অনলাইনে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে।  

    সিএএ প্রক্রিয়া কীভাবে কাজ করে?
    সরকারের  পোর্টাল https:/indiancitizenshiponline.nic.in-এ অনলাইনে আবেদন করতে হয়। প্রথমে আবেদনপত্রটি পাঠানো হয় জেলা কমিটির কাছে। তারপরে সেটি পাঠানো হয় এমপাওয়ার্ড কমিটিতে। এরপর নাগরিকত্ব প্রদান নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয় ওই কমিটি।  এই কমিটির প্রধান সেন্সাস প্রক্রিয়ার ডিরক্টর। এছাড়া, আরও ৭ সদস্য থাকেন। তাঁদের মধ্যে থাকবেন আইবি, ফরেন, রিজিওনাল রেজিস্ট্রেশন অফিস, পোস্ট অফিস, স্টেট ইনফরমেশন অফিসার।

    নাগরিকত্বের জন্য কী নথি লাগবে?
    ভারতীয় নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য অনলাইন ফর্মে তফসিল ১এ-এর অধীনে ৯ ধরনের নথি চাওয়া হয়েছে। যেখানে তফসিল ১বি-এর অধীনে ২০ ধরনের নথি এবং তফসিল ১ সি-এর অধীনে হলফনামা দিতে হবে। আবেদনপত্রে উল্লেখ করতে হবে তাঁরা ওই ৩ দেশের অমুসলিম উদ্বাস্তু। এজন্য পাসপোর্ট, জন্মের শংসাপত্র, শিক্ষাগত যোগ্যতার শংসাপত্র, ড্রাইভিং লাইসেন্স, রেশন কার্ড, প্যান কার্ড, জমির নথি, বিদ্যুতের বিল, বিয়ের শংসাপত্রের মতো নথি লাগবে। 
  • Link to this news (Aajtak)