• প্রকাশ্য রাস্তায় মাকে ধারালো অস্ত্রের কোপ! ধৃত ছেলে
    এই সময় | ২৫ নভেম্বর ২০২১
  • এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: পারিবারিক বিবাদের জেরে প্রকাশ্য রাস্তায় মাকে কোপানোর অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার সকালে নদিয়ার শান্তিপুরের ঘটনা। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গুরুতর জখম অবস্থায় অন্নবালা হালদার নামে বছর পঞ্চাশের ওই মহিলাকে শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। অভিযুক্ত ছেলে জীবন হালদারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

    স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, শান্তিপুর পুরসভার লেবু তলা এলাকার বাসিন্দা অন্নবালা গৃহ সহায়িকার কাজ করে রোজগার করেন। এ দিন সকালেও তিনি সেই কাজে যাওয়ার উদ্দেশেই বেরিয়েছিলেন। সকাল ৮টা নাগাদ দত্ত পাড়া লেন এলাকায় তাঁকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন অন্য পথচারীরা। তখনও অন্নবালা সচেতন ছিলেন। তিনি নিজেই জানান তাঁর ছেলে আর স্বামী তাঁকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়েছে। তাঁর দাবি, কেন ছেলে এমন আচরণ করল, তা তিনি বুঝতে পারছেন না। বাড়ি থেকে বেরিয়ে তিনি কাজে যাচ্ছিলেন। কিছু দূর আসার পর আচমকাই তাঁর উপর চড়াও হয় তাঁর বড় ছেলে।

    পরে ওই এলাকার বাসিন্দারা বাড়িতে তাঁর স্বামীকে খবর দেন। কিন্তু কেউ আসেননি বলে অভিযোগ। স্থানীয় বাসিন্দা নারায়ণ দত্ত বলেন, ‘ভদ্রমহিলাকে আমরা সকলেই চিনি। এ দিন সকালে হাঁটতে বেরিয়ে দেখি রাস্তায় পড়ে আছেন। মাথার পিছন থেকে রক্ত বেরিয়ে রাস্তা ভেসে যাচ্ছে। উনিই বললেন, ছেলে কুপিয়েছে। আমরা ওঁর স্বামীকে খবর দিয়েছি। কিন্তু আসেনি।’

    স্থানীয় বাসিন্দা এবং অন্নবালার প্রতিবেশীরাই তাঁকে উদ্ধার করে এক ভ্যানে তুলে শান্তিপুর হাসপাতালে পৌঁছে দেন। সেখানে তাঁর ছোট ছেলে রাজু হালদার এসেছিলেন বলে জানা গিয়েছে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় অন্নবালাকে পরে শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, বেশ কিছুদিন ধরেই বিষয় সম্পত্তি নিয়ে হালদার পরিবারে বিবাদ চলছিল। স্থানীয় বাসিন্দাদের অনুমান, ছোট ছেলে মায়ের পক্ষে কথা বললেও বিবাদ মূলত স্বামী আর বড়ছেলের সঙ্গেই ছিল। তার পরিপ্রেক্ষিতেই এ দিনের এই হামলার ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে মনে করছে পুলিশও।

    কিন্তু, সাত সকালে এমন ভাবে প্রকাশ্য রাস্তায় নিজের মা-কে কোপানর ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। বাসিন্দারা কা্র্যত হতবাক। পাশাপাশি তাঁরা প্রশ্ন তুলছেন এলাকার নিরাপত্তা নিয়েও। পুলিশ অবশ্য সব দিক খতিয়ে দেখে উপযুক্ত পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছে।
  • Link to this news (এই সময়)