• আজ থেকে মেট্রোয় টোকেন, সংক্রমণ রুখবে যন্ত্র
    এই সময় | ২৫ নভেম্বর ২০২১
  • এই সময়: আর ডেটল-জল বা সাবানজল নয়, মেট্রো রেলের টোকেন জীবাণুমুক্ত করতে প্রতিটি স্টেশনে বসল আল্ট্রা-ভায়োলেট স্টেরিলাইজার যন্ত্র। স্মার্টগেটে জমা পড়া এক সঙ্গে তিনশো স্মার্ট টোকেন এই যন্ত্রে পুরোপুরি জীবাণুমুক্ত হতে মাত্র চার মিনিট সময় লাগবে বলে জানাচ্ছেন কলকাতা মেট্রোর কর্তারা।

    ২৪ মার্চ ২০২০-র পর ফের ২৫ নভেম্বর ২০২১। কলকাতা মেট্রোয় চাপতে যাত্রীদের আবার মাত্র পাঁচ টাকার টোকেন কাটলেই হবে। দৈনিক যাতায়াতে আর তাঁদের ১২০ টাকা দিয়ে স্মার্টকার্ড কিনতে হবে না। তবে ঝুঁকিও কম নয়। স্মার্ট কার্ড হাতে হাতে ঘোরে না বলে এর থেকে ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কা কম। কিন্তু টোকেন যাত্রীদের হাতে হাতে ঘুরবে। প্রতিদিন হাজার হাতে ঘোরা টোকেন যাতে করোনা সংক্রমণের কারণ না হয়, সে জন্যেই লকডাউনের আগে ২০২০-র মার্চেও ব্যবস্থা নিয়েছিলেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ। সে বার স্মার্টগেট থেকে সংগ্রহ করা টোকেন আগে জীবাণুনাশক জলে ধুয়ে তবে নতুন করে ইস্যু করা হতো। তবে জল ঢুকে অনেক টোকেনের চিপ ক্ষতিগ্রস্তও হয়েছিল। সময় লাগত অনেকটা। জীবাণুনাশে পুরোপুরি উপযুক্তও ছিল না।

    সেই সব সমস্যার সমাধানেই যন্ত্রের ব্যবস্থা। কলকাতা মেট্রোর ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার প্রত্যুষ ঘোষ বলেন, 'আল্ট্রা-ভায়োলেট রশ্মি দিয়ে টোকেনের গায়ে লেগে থাকা সব ধরনের জীবাণু মেরে ফেলা হবে। আমরা মোট ৪০টি এমন যন্ত্র এনেছি। বড় স্টেশনে দু'টি করে এবং ছোট স্টেশনে একটা করে এমন যন্ত্র বসানো হয়েছে।' সংস্থার কর্মীরা জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই যন্ত্রের কার্যকারিতার মহড়া হয়ে গিয়েছে। এক-একটি যন্ত্রের দাম পড়েছে ছ'হাজার টাকা করে।

    মেট্রোর কর্তাদের দাবি, টোকেন ফেরত আসায় কলকাতা মেট্রো শহরের সবচেয়ে সস্তার গণপরিবহণেও পরিণত হল। মাত্র পাঁচ টাকায় বাতানুকূল যানে দু'কিলোমিটার পর্যন্ত ভ্রমণের সুবিধা অন্য কোনও গণপরিবহণে নেই। প্রত্যুষ বলেন, 'স্কুল-কলেজ খুলে যাওয়ায় টোকেনের চাহিদা বাড়ছে। আমাদের পরিকল্পনা ছিলই টোকেন ফেরত আনার। সেটাই করা হলো।' এমনিতে প্রাক-করোনা পর্বে প্রতিদিন ২৮৮টি ট্রেন চলত মেট্রোর ট্র্যাকে। দৈনিক যাত্রী ছিল সাড়ে ছ'লক্ষ। এখন দৈনিক যাত্রীসংখ্যা সাড়ে তিন লক্ষের কম। রেক ২৭২টি। এখনও প্রতি রেকে আগের চেয়ে ৫০ শতাংশ কম যাত্রীই উঠছেন। এ বার হয়তো বাড়বে।
  • Link to this news (এই সময়)