• মোদী সরকার ব্যর্থ! মমতা-সাক্ষাতের পরদিনই বিস্ফোরক রিপোর্ট কার্ড সুব্রহ্মণ্য়ম স্বামীর
    এই সময় | ২৫ নভেম্বর ২০২১
  • এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: BJP সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর (Subramanian Swamy) মুখে মমতা-স্তূতি আগেই শোনা গিয়েছিল। এবার মোদী সরকারকে (Narendra Modi Govt) রিপোর্ট কার্ড দিয়ে ব্যর্থ বলেই ঘোষণা করলেন বিক্ষুব্ধ এই দলীয় সাংসদ। যা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে।

    জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার এক টুইট করে অর্থ, প্রতিরক্ষা, আভ্যন্তরীণ সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে মোদী সরকারের কাজের রিপোর্ট কার্ড তুলে ধরেন প্রবীণ BJP নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। সেখানে সমস্ত ক্ষেত্রে মোদী সরকারকে ‘ব্যর্থ’ বলেই উল্লেখ করেন তিনি। প্রবীণ সাংসদ লিখেছেন, ‘মোদী সরকার অর্থনীতি এবং সীমান্ত সুরক্ষায় ব্যর্থ। বিদেশ নীতিতে আফগানিস্তান সংকটে চরম ব্যর্থ।’ আবার পেগাসাস কেলেঙ্কারিতে কেন্দ্রীয় সরকারকে দোষারোপ করে প্রবীণ সাংসদের রিপোর্ট কার্ডে উল্লিখিত, জাতীয় নিরাপত্তায়- পেগাসাস NSO। এমনকি আভ্যন্তরীণ সুরক্ষা প্রসঙ্গে কাশ্মীর ‘অন্ধকারে’ বলে তোপ দেগেছেন BJP সাংসদ।

    দিল্লিতে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে তাঁর পাশে থাকার বার্তা আগেই দিয়েছিলেন। এবার মোদী সরকারের রিপোর্ট কার্ড তুলে ধরে ‘ব্যর্থতা’ তকমা দিয়ে ট্যুইটের প্রেক্ষিতে সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর পরবর্তী রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় মোদী সরকারের বিরুদ্ধে তাঁর বিষোদ্গার এটাই প্রথম নয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিল্লি যাত্রার শুরু থেকেই একের পর এক বিস্ফোরক ট্যুইট করেছেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। গত ২৩ নভেম্বর, মঙ্গলবার প্রবীণ এই BJP নেতা মোদী সরকারের সমালোচনা করে ট্যুইটারে লিখেছিলেন, ‘যদি চিন আমাদের পারমাণবিক অস্ত্রে ভয় না পায়, তাহলে আমরা কেন তাদের ভয় পাচ্ছি?’ আবার গত ২২ নভেম্বর, সোমবার মূলবৃদ্ধি নিয়ে একটি ট্যুইটের জবাবে নাম না করে প্রধানমন্ত্রীকে তোপ দেগে রাজ্যসভার সাংসদ লিখেছিলেন, ‘তিনি (প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ) অর্থনীতি জানেন না।’ আবার আরেকটি ট্যুইটে মোদী সরকার সম্পূর্ণভাবে ‘স্থূলবুদ্ধিসম্পন্ন’ তকমা দিয়ে তিনি লিখেছিলেন, ‘ভারতের MEA (বিদেশমন্ত্রক) ও NSA (আভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা সংস্থা) খারাপ সময় চলছে, চিন আমাদের এলাকা দখল করছে, তখন ঘুমিয়েছিল সরকার।’

    উল্লেখ্য, ইদানিংকালে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে BJP-র সঙ্গে সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছে। গত কয়েক মাস ধরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাজের প্রশংসা শোনা যাচ্ছে সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর মুখে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রোম সফরে অনুমতি না দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনাও করেন তিনি। এরপর গত মাসেই BJP-র জাতীয় কর্মসমিতি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে সুব্রহ্মণ্যম স্বামীকে। এই পরিস্থিতিতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়রে বাসভবনে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে একান্তে বৈঠক এবং তারপর প্রকাশ্যে মমতা-স্তুতি ও মোদী সরকারের তীব্র সমালোচনার পর স্বভাবতই সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর পরবর্তী রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। তাহলে কি এবার তিনি তৃণমূলে যাচ্ছেন? যদিও প্রবীণ বিজেপি নেতার জবাব ছিল, ‘আমি তো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশেই আছি।’ এবার তাঁর একের পর এক বিস্ফোরক ট্যুইটে বিজেপি থেকে নরেন্দ্র মোদী র সরকার যে অস্বস্তিতে পড়েছে তা বলা বাহুল্য।
  • Link to this news (এই সময়)