• টিকার 'ডবল ডোজ' নেওয়ার পরও করোনা আক্রান্ত ৬৬ ডাক্তারি পড়ুয়া
    এই সময় | ২৫ নভেম্বর ২০২১
  • এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার হাত থেকে মুক্তিপাওয়ার জন্য টিকাকরণে দেওয়া হচ্ছে বিশেষ জোর। কোভিড টিকার হাত ধরেই করোনামুক্তির পথে হাঁটবে বিশ্ব মনে করা হচ্ছিল এমনটাই। কিন্তু, সম্প্রতি একটি ঘটনায় ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য। কর্ণাটকের ধারওয়াড মেডিক্যাল কলেজের ৬৬ জন ডাক্তারি পড়ুয়া একসঙ্গে কোভিড পজিটিভ। তাদের মধ্যে প্রত্যেকেরই কোভিড টিকার দুটি ডোজ নেওয়া অর্থাৎ তাঁদের সম্পূর্ণ টিকাকরণ হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই দুটি কলেজ হোস্টেল সম্পূর্ণ সিল করে দেওয়া হয়েছে।

    জানা গিয়েছে কর্ণাটকের SDM কলেজ অফ মেডিক্যাল সায়েন্সের পড়ুয়ারা সম্প্রতি কলেজের একটি ইভেন্টে যোগদান করেন। এরপরে ৪০০ জন পড়ুয়ার মধ্যে ৩০০ জনের কোভিড টেস্ট করা হয়। এতেই জানা যায়, ৬৬ জন কোভিড পজিটিভ। টিকাগ্রহণ সম্পূর্ণ হওয়ার পরেই কীভাবে ৬৬ জন করোনায় আক্রান্ত হলেন , তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

    উল্লেখ্য, Dharwad এর ডেপুটি কমিশনার নীতেশ পাটেল বলেন, '৬৬ জন করোনা পজিটিভ। তাঁদের কলেজের মধ্যেই চিকিৎসা করা হবে। দুটি হোস্টেল ইতিমধ্যেই সিল করে দেওয়া হয়েছে। বাকি ১০০ জন ছাত্রছাত্রীরও করোনা পরীক্ষা করা হবে। আমরা ছাত্রছাত্রীদের কোয়ারেন্টাইন করেছি। কাউকে হোস্টেলের বাইরে বার হতে নিষেধ করা হয়েছে। তারা হোস্টেলের মধ্যেই কোয়ারেন্টাইন থাকবে। '

    প্রসঙ্গত, সম্প্রতি অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স (দিল্লি)-র একটি গবেষণায় জানা যায়, কোভিডের বিরুদ্ধে মাত্র ৫০ শতাংশ কার্যকরি কোভ্যাক্সিন। যা কোভ্যাক্সিন ৭৭.৮ শতাংশ কার্যকরী এই তথ্যের পরিপন্থী। AIIMS-এর গবেষকদের করা এই গবেষণায় ২ হাজার ৭১৪ জন স্বাস্থ্যকর্মীদের থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল।

    এদিকে AIIMS-এর ডিরেক্টর রণদীপ গুলেরিয়া বলেন, 'বর্তমানে করোনাসংক্রমণের হার অত্যন্ত বেড়ে গিয়েছে এই ধরনের কোনও তথ্য সামনে আসছে না। সেরো সার্ভের রিপোর্ট বলছে এমনটাই। সেক্ষেত্রে এখনই আমাদের বুস্টার ডোজের প্রয়োজন নেই। হয়তো ভবিষ্যতে আমাদের করোনার আরও একটি ডোজ নিতে হতে পারে। কিন্তু, আপাতত আরও একটি টিকার ডোজ নেওয়া অপ্রয়োজনীয়। আমাদের উচিত আরও মানুষ যাতে করোনাটিকার প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজ নেন সেই বিষয়ে সচেতন করা। যদি সকলে টিকা নেন তাহলে আমরা সকলে সুরক্ষিত থাকব।'

    কলকাতার আরও খবরের জন্য ক্লিক করুন। প্রতি মুহূর্তে খবরের আপডেটের জন্য চোখ রাখুন এই সময় ডিজিটালে।
  • Link to this news (এই সময়)