• আসন্ন ৫ রাজ্যের বিধানসভার ভোটে লাইন এড়াতে ভোটারদের হাতে টোকেন দেবে কমিশন
    দৈনিক স্টেটসম্যান | ১১ জানুয়ারি ২০২২
  • পাঁচ রাজ্যের ভোটে কোভিড নিয়ে ইতিমধ্যেই গুচ্ছ বিধি আরোপ করেছে নির্বাচন কমিশন। ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত জনসভা, পদযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে তারা। ভিড় এড়াতে বুথ পিছু ভোটার সংখ্যাও কমিয়ে দিয়েছে।

    এবার কমিশন সিদ্ধান্ত করেছে, পাঁচ রাজ্যের ভোটে বুথে ভোটারদের লাইনে দাঁড়াতে হবে না। বুথের বাইরেই থাকবে কোভিড হেল্প ডেস্ক। ভোটারদের প্রথমে সেখানে যেতে হবে।

    হেল্প ডেস্ক ভোটারের হাতে একটি টোকেন তুলে দিয়ে বলে দেবে কোন সময় আসতে হবে, যখন সরাসরি বুথে গিয়ে ভোট দেওয়া যাবে। যাতে লাইনে দাঁড়াতে না হয় ভোটারদের।

    কারণ, আগের ভোটগুলিতে দেখা গিয়েছে ভোটারদের লাইনে দূরত্ববিধি মানা হচ্ছে না নিরাপত্তারক্ষীরা সতর্ক করা সত্ত্বেও ভোটাররা গায়ে গায়ে দাঁড়ান।

    কমিশনের এক কর্তা বলেন, টোকেন ব্যবস্থায় আরও একটি লাভ হবে। তাহল, বুথ জ্যামের আশঙ্কা পুরোপুরি নির্মূল করা যাবে।

    ভোটদানে বিলম্বের অভিযোগ তোলা যাবে না কারণ কাউকেই বুথে এসে অপেক্ষা করতে হবে না ভোটদানের জন্য। নির্বাচন কমিশন এবার প্রচারে ভিড় এড়ানোর যাবতীয় উদ্যোগ নিচ্ছে।

    শনিবার ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণার পর তারা ভোটমুখী রাজ্যগুলিকে জানিয়েছে, এবার স্টার ক্যাম্পেনারের সংখ্যাও কমানো হবে।

    সর্ব ভারতীয় দলগুলি এতদিন বিধানসভা ভোটের প্রচারে ৪০ জন স্টার ক্যাম্পেনারকে প্রচারে নামাতে পারত। এবার তা কমিয়ে ৩০ করা হচ্ছে। অন্যদিকে, রাজ্যস্তরের পার্টিগুলির স্টার ক্যাম্পেনারের সংখ্যা কমিয়ে করা হচ্ছে ২০।

    বড় দলগুলির মধ্যে বিজেপি ও কংগ্রেস বিপুল সংখ্যায় স্টার ক্যাম্পেনায় নামায়। দলের নেতা-মন্ত্রী ছাড়াও এই তালিকায় থাকে চিত্রতারকা, ক্রীড়াবিদ প্রমুখ। স্বভাবতই কমিশনের এই সিদ্ধান্তে সামান্য হলেও সমস্যায় পড়বে বড় দলগুলি।

    কমিশন আরও ঠিক করেছে, মনোনয়নপত্র পেশের সময় প্রার্থীর সঙ্গে একজন রিটার্নিং অফিসারের ঘরে ঢুকতে পারবেন। মনোনয়ন পেশের সময় মিছিল আগেই নিষিদ্ধ করেছে তারা। এবার অনলাইনেই মনোনয়ন পেশের ব্যবস্থা করেছে কমিশন।
  • Link to this news (দৈনিক স্টেটসম্যান)