• মুখ্যমন্ত্রীর পাঠানো গঙ্গাসাগরের পবিত্র জলের স্পর্শে মকরস্নান তারাপীঠে, আপ্লুত পুণ্যার্থীরা
    বর্তমান | ১৫ জানুয়ারি ২০২২
  • সংবাদদাতা, রামপুরহাট: মকর সংক্রান্তির পুণ্যতিথির সকালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাঠানো গঙ্গাসাগরের পবিত্র জল আনা হয় তারাপীঠ মন্দিরে। শুক্রবার রামপুরহাটের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট রঞ্জিত হালদার সহ অন্যান্য আধিকারিকরা পিতলের বড় কলসি ভর্তি জল তুলে দেন মন্দির কমিটির সভাপতির হাতে। সেই জল মায়ের চরণে দিয়ে পরে তা ভক্তদের মাথায় ছিটিয়ে দেওয়া হয়। গঙ্গাসাগরের পবিত্র জলের স্পর্শে মকরস্নানের অনুভূতি পেয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তারাপীঠে আসা পুণ্যার্থীরা।

    রাজ্যে বাড়তে থাকা করোনা আবহের মধ্যেই এদিন শুরু হয়েছে গঙ্গাসাগর মেলা। তবে ইচ্ছা থাকলেও এবার অনেক মানুষ এই পুণ্য তিথিতে গঙ্গাসাগরে মকর স্নানে যেতে পারেননি। এই পরিস্থিতিতে জেলায় বসেই যাতে গঙ্গাসাগরের পবিত্র জলের স্পর্শ পান ভক্তপ্রাণ মানুষ, সেব্যাপারে উদ্যোগ নেন মুখ্যমন্ত্রী। রা঩জ্যের বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি বীরভূমের তারাপীঠ মন্দিরেও কলসি ভর্তি জল পাঠানো হয়। এদিন সকালেই সেই কলসি এসে পৌঁছয় রামপুরহাটে। তারপর ডেপুটি ম্যাজেস্ট্রেট সেই জল পৌঁছে দেন তারাপীঠ মন্দিরে। 

    জেলাশাসক বিধান রায় বলেন, মকর সংক্রান্তিতে গঙ্গসাগরে পুণ্য স্নানে সবাই যেতে পারেন না। সেই গঙ্গাসাগরের পবিত্র জলের স্পর্শে যাতে জেলাতেই বসে পূণ্যস্নানের অনুভূতি পাওয়া যায় তারজন্য বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি তারাপীঠ মন্দিরে তা পাঠিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। 

    তারাপীঠ মন্দির কমিটির সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় বলেন, মকরস্নানের পুণ্য তিথিতে এত দূর থেকে গঙ্গাসাগরের পবিত্র জল পেয়ে আমরা ধন্য। এই জলে তারামা সহ মন্দিরে থাকা অন্যান্য দেবদেবীর চরণে দিয়ে সেবাইত ও ভক্তদের মাথায় ছিটিয়ে দেওয়া হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। এদিন ঝাড়খণ্ড থেকে পরিবার নিয়ে তারাপীঠে আসা প্রকাশ যাদব বলেন, তারাপীঠ মন্দিরে পুজো দিতে এসে মকর সংক্রান্তির মতো পুণ্য তিথিতে গঙ্গাসাগরের পবিত্র জলের স্পর্শ পাব তা কল্পনার বাইরে ছিল। এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ মানুষের জন্য যে চিন্তা করেন এটা তারই প্রমাণ। 
  • Link to this news (বর্তমান)