• দিল্লিতে ফুলের বাজারে উদ্ধার ৩ কেজি আইইডিসাধারণতন্ত্র দিবসের আগে নাশকতার ছক বানচাল
    বর্তমান | ১৫ জানুয়ারি ২০২২
  • নয়াদিল্লি: সপ্তাহ দুয়েক বাদে সাধারণতন্ত্র দিবস। উত্তরপ্রদেশে ভোটের কাউন্টডাউনও শুরু। এর মধ্যেই রাজধানীতে বড়সড় নাশকতার ছক বানচাল করল পুলিস ও এনএসজি। শুক্রবার সকালে উত্তরপ্রদেশ সংলগ্ন পূর্ব দিল্লির গাজিপুরে একটি ফুলের বাজারে উদ্ধার হল প্রচুর পরিমাণ তাজা বিস্ফোরক। প্রায় তিন কেজি। ভরা বাজারে একটি পরিত্যক্ত ব্যাকপ্যাকে লোহার চাদরে মুড়ে রাখা ছিল নাইট্রেট ও আরডিএক্স-এর মিশ্রণে তৈরি ইম্প্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি)। খবর পেয়েই ঘটনাস্থল ঘিরে ফেলে পুলিস। পৌঁছয় এনএসজি, বম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড, বিপর্যয় মোকাবিলা দল। বাজারের কাছেই নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণের মাধ্যমে শক্তিশালী বিস্ফোরকটিকে নিষ্ক্রিয় করা হয়। ভিড়ে ঠাসা বাজারে বিস্ফোরণ ঘটলে অসংখ্য মানুষের প্রাণহানি হতো বলেই পুলিসের। জঙ্গি যোগের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। 

    এদিন সকাল ১০টা ২০ মিনিটে দিল্লির দমকল বিভাগে একটি  ফোন আসে। এক অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি জানান, গাজিপুরের ফুলের বাজারে একটি পরিত্যক্ত ব্যাগ পড়ে রয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড, বিপর্যয় মোকাবিলা দল।  দ্রুত চলে আসে এনএসজিও। রোবট স্ক্যানারে দেখা যায়, ব্যাগে বিস্ফোরক রয়েছে। গোটা এলাকা ঘিরে দিয়ে চলে উদ্ধার পর্ব। পরে বাজার সংলগ্ন এলাকায় প্রায় আট ফুট গর্ত করে বিস্ফোরকটি নিষ্ক্রিয় করা হয়। আইইডি-র নমুনা ফরেন্সিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এনএসজি-র ডিরেক্টর জেনারেল এম এ গণপতি জানিয়েছেন, নাইট্রেট ও আরডিএক্সের মিশ্রণে বিস্ফোরকটি তৈরি  হয়েছে। বিস্ফোরকটির সঙ্গে একটি টাইমার লাগানো ছিল।

    পরে দিল্লির পুলিস কমিশনার রাকেশ আস্থানা বলেন, ‘নির্দিষ্ট খবরের ভিত্তিতে আইইডি উদ্ধার করা হয়েছে। সকাল সাড়ে ন’টা নাগাদ বাজারে আসা এক ক্রেতা স্কুটিতে বিস্ফোরক ভর্তি ব্যাগটি রেখে যায়। একটি দোকান থেকে তাকে ফুল কিনতেও দেখা গিয়েছে।’ কিছুক্ষণ পরে এক ফুলবিক্রেতা লক্ষ করেন স্কুটিতে একটি ব্যাগ রাখা রয়েছে। আশপাশে কেউ নেই। সন্দেহ হওয়ায় তাঁরাই পুলিসে খবর দেন। রাকেশ আস্থানা আরও জানিয়েছেন, ২৬ জানুয়ারির আগে এই ধরনের ঘটনা যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্তকারীরা মনে করছেন হামলার লক্ষ্য ছিল গাজিপুর মান্ডি। কারণ সকালের দিকে সেখানে প্রচুর কৃষকের সমাগম হয়। কিছু দিন আগেই এই ফুল বাজার সংলগ্ন অঞ্চলে ধর্নাতেও বসেছিলেন কৃষকরা। শুধু জঙ্গি যোগ নয়, উত্তরপ্রদেশের আসন্ন নির্বাচনের সঙ্গেও এই বিস্ফোরক উদ্ধারের যোগ রয়েছে কি না, খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা। 
  • Link to this news (বর্তমান)