• সংসদ ভবনের সাতশোর বেশি কর্মী আক্রান্ত  সংক্রমণের ধাক্কার মধ্যেই ৩১শে শুরু অধিবেশন, বাজেট পেশ ১ ফেব্রুয়ারি
    বর্তমান | ১৫ জানুয়ারি ২০২২
  • নয়াদিল্লি: সংক্রমণের চলতি ঢেউ আছড়ে পড়েছে সংসদ ভবনেও। ইতিমধ্যেই আক্রান্ত সাতশোর বেশি আধিকারিক ও কর্মী। তারই মধ্যে সংসদের আসন্ন বাজেট অধিবেশনের নির্ঘণ্ট ঘোষিত হল। শুক্রবার সরকারি সূত্রে জানানো হল, বাজেট অধিবেশন শুরু হচ্ছে আগামী ৩১ জানুয়ারি। দুই কক্ষের যৌথ সভায় রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের ভাষণের মাধ্যমে। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২-২৩ অর্থবর্ষের সাধারণ বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। এবারের বাজেট অধিবেশন দুই পর্বে ৮ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে। অধিবেশনের প্রথম পর্ব শেষ হবে ১১ ফেব্রুয়ারি। এক মাসের অবকাশের পর দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে ১৪ মার্চ। চলবে ৮ এপ্রিল পর্যন্ত।

    করোনা সংক্রমণের ধাক্কার মধ্যেই এবার বাজেট অধিবেশন শুরু হতে চলেছে। দু’দিন আগেই রাজ্যসভার এক আধিকারিক জানান, ৪ ডিসেম্বর থেকে সংসদ ভবনের মোট ৭১৮ জন কর্মীর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এর মধ্যে রাজ্যসভার সচিবালয়ের ২০৪ জন আধিকারিক ও কর্মী রয়েছেন। বাকিরা লোকসভার সচিবালয় ও তার সঙ্গে যুক্ত পরিষেবাগুলিতে কাজ করেন। লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা ও দুই কক্ষের সেক্রেটারি জেনারেলকে সঙ্গে নিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু। সংক্রমণ বৃদ্ধির এই আবহেও বাজেট অধিবেশন যাতে নির্বিঘ্নে করা যায়, আধিকারিকদের তা দেখতে বলেছেন তিনি। সংসদ ভবনের অন্য আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, লোকসভা ও রাজ্যসভা— দুই কক্ষেরই এক-তৃতীয়াংশ স্টাফকে বাড়ি থেকে কাজ করতে বলা হয়েছে। জানুয়ারি মাসের শেষ পর্যন্ত তাঁরা বাড়ি থেকেই কাজ করবেন। যাঁরা অফিসে আসবেন, ভিড় এড়াতে তাঁদের জন্য লোকসভার তরফে একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে। ডিউটিতে ঢোকা ও বেরনো দু’টি পৃথক সময়ে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে ঢোকা ও বেরনোর সময় সংসদ ভবনের করিডর ও লিফ্টগুলিতে ভিড় এড়ানো সম্ভব হবে। নেওয়া হচ্ছে অন্যান্য ব্যবস্থাও।

    অধিবেশন শুরু হলে সংসদে আসবেন এমপিরাও। অন্য এক আধিকারিক জানান, সংক্রমণ এড়িয়ে কীভাবে অধিবেশন চালানো হবে, সেবিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ২৫ বা ২৬ জানুয়ারি বৈঠক করবেন লোকসভার স্পিকার ও রাজ্যসভার চেয়ারম্যান। ঘটনাচক্রে, অধিবেশন চলার মধ্যেই পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোট শুরু হচ্ছে। ফলে, সংক্রমণের ধাক্কা এড়িয়ে নির্ঘণ্ট মেনে অধিবেশন নির্বিঘ্নে শেষদিন পর্যন্ত আদৌ চালানো যাবে কি না, সেবিষয়ে সন্দিহান আধিকারিকরাও।
  • Link to this news (বর্তমান)