• 'শ্রীরামপুর নতুন সাংসদ চায়', কল্যাণকে বিঁধলেন এবার অভিষেকের ভাই
    এই সময় | ১৫ জানুয়ারি ২০২২
  • এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যে তোলপাড় হয়েছিল বঙ্গ রাজনীতি। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের 'ডায়মন্ডহারবার মডেল' প্রসঙ্গে সরব হয়েছিলেন তিনি। পালটা এই সাংসদকে তোপ দাগেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ এবং সাংসদ অপরূপা পোদ্দার। এই তরজা যাতে কোনওভাবেই না বাড়ে সেজন্য উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্যের শাসক দলের শীর্ষ নেতারা। কিন্তু, এরই মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় 'শ্রীরামপুর নতুন সাংসদ চায়' বলে শুরু হয়েছে প্রচার। এদিকে শুক্রবার রাতে এই পোস্ট শেয়ার করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই আকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়ও। পোস্টের সঙ্গে জুড়েছেন বিশেষ বার্তাও। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই পোস্ট করে আকাশ লেখেন, 'নিজেকে হাস্যস্পদ না করে আশেপাশে ঘটে চলা পরিবর্তন সম্মানের সঙ্গে মেনে নিন।' এই পোস্টে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম উল্লেখ নেই।

    এদিকে শুক্রবারই ফেসবুকে একটি ইঙ্গিতপূর্ণ পোস্ট করেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। 'মানুষ থেকেই মানুষ আসে, বিরুদ্ধতার ভিড় বাড়ায় / আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ তফাৎ শুধু শিরদাঁড়ায়', শ্রীজাতর এই লেখা শেয়ার করেন তিনি। পোস্টটি অত্যন্ত ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

    শুক্রবার তৃণমূল সাংসদ অপরূপা পোদ্দার লোকসভায় তৃণমূলের মুখ্যসচেতক পদ থেকে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইস্তফার দাবি করেন। তিনি বলেন, 'সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনও মন্তব্য থাকলে তা দলের অন্দরে বলা উচিত ছিল। তাঁর পদত্যাগ করা উচিত। যদি ঘরশত্রু বিভীষণ নিয়ে বাস করতে হয় তাহলে আদতে তা দলের সমস্যা।’

    প্রসঙ্গত, করোনা পরিস্থিতিতে একগুচ্ছ পদক্ষেপ করার কথা জানিয়েছিলেন ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছিলেন, 'এই করোনা পরিস্থিতিতে মেলা, ভোট বন্ধ রাখা উচিত। আগামী দু'মাস সব বন্ধ রাখা উচিত।' তাঁর এই সচেতন মন্তব্য চিকিৎসক থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের মধ্যেও প্রশংসা কুড়িয়েছিল। কিন্তু, এই মন্তব্যের পালটা সরব হন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, 'দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক পদটি সর্বক্ষণের। এই পদে থেকে কারও ব্যক্তিগত মতামত থাকতে পারে না। বিভিন্ন বিষয়ে আমার ব্যক্তিগত মতামত রয়েছে। কিন্তু, দলীয় শৃঙ্খলার কথা মাথায় রেখেই তা প্রকাশ্যে বলা সম্ভব নয়। এই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধাচারণ। এই মন্তব্যে রাজ্য সরকারকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।'

    এদিকে কল্যাণের মন্তব্যের পালটা তাঁকে তীব্র আক্রমণ করেন কুণাল ঘোষও। শুরু হয় কল্যাণ-কুণাল বাকযুদ্ধ। এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় 'শ্রীরামপুর নতুন সাংসদ চায়' বলে শুরু হয়েছে প্রচার। আর এই পোস্টে আকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

    পশ্চিমবঙ্গের আরও খবরের জন্য ক্লিক করুন। প্রতি মুহূর্তে খবরের আপডেটের জন্য চোখ রাখুন এই সময় ডিজিটালে।
  • Link to this news (এই সময়)