• পরকীয়ার জের! স্বামীকে খুনের অভিযোগ মহিলার বিরুদ্ধে
    এই সময় | ১৯ মে ২০২২
  • বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের (Extra Marital Affair) জেরে স্বামীকে খুনের অভিযোগ উঠল এক মহিলার বিরুদ্ধে। মৃত ব্যক্তির নাম ভেঙ্কটেশ। বয়স ৫২ বছর। বুধবার চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর (West Medinipur) জেলার খড়গপুর টাউন থানার অন্তর্গত মথুরাকাটি এলাকায়। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত মহিলাকে আটক করেছে পুলিশ। তবে শুধুই পরকীয়ার জেরে খুন করা হয়েছে, নাকি তার অন্য কোনও কারণ রয়েছে তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

    জানা গিয়েছে,পেশায় রেলকর্মী ভেঙ্কটেশের বাড়ি খড়গপুর টাউন থানার অন্তর্গত মথুরাকাটি এলাকায়। প্রায় ১০ বছর আগে খড়গপুর এলাকার দিব্যার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল ভেঙ্কটেশের। তাঁদের পাঁচ বছরের এক দত্তক কন্যা সন্তানও রয়েছে। অভিযোগ, সম্প্রতি বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন ওই মহিলা। পরে স্ত্রীর বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথা জানতে পারেন ভেঙ্কটেশ। আর তার জেরে তাঁদের মধ্যে অশান্তি লেগেই ছিল। প্রায় প্রতিদিনই এনিয়ে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে ঝামেলা হত বলে অভিযোগ।

    পরিবারের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে,মঙ্গলবার রাতেও ভেঙ্কটেশের সঙ্গে-স্ত্রী দিব্যার অশান্তি হয়েছিল। বাইরে থেকেই ঝগড়ার আওয়াজ শুনতে পেয়েছিলেন তাঁরা। এরপর বুধবার সকালে বাড়ির ভিতর থেকে রক্তাক্ত অবস্তায় ভেঙ্কটেশকে উদ্ধার করা হয়। তাঁর মুখে, কানে রক্ত ও গলায় আঘাতের চিহ্ন ছিল বলে পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে। এরপর খবর দেওয়া হয় খড়্গপুর টাউন থানায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থানে পৌঁছে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠায়।

    মৃতের পরিবারের সদস্যদের তরফে অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে ছিলেন দিব্যা। তারই জেরে পরিকল্পিতভাবে ভেঙ্কটেশকে খুন করেছেন তিনি। ইতিমধ্যে মৃত ভেঙ্কটেশের পরিবারের পক্ষ থেকে ওই দিব্যার বিরুদ্ধে খড়গপুর টাউন থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ ওই গৃহবধূকে আটক করেছে বলে জানা গিয়েছে। এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

    এর আগে উত্তর ২৪ পরগনাতেও এই ধরনের একটি ঘটনা ঘটেছিল। জেলার বাগদা থানা এলাকায় গোপনে বন্ধুর সঙ্গে প্রেম করছিল স্ত্রী। এই সন্দেহের বশে বন্ধুর মাথায় কুড়ুলের কোপ মেরে তাঁকে হত্যা করে স্বামী। রেহাই পাননি স্ত্রীও। পুলিশ জানায়, মৃতের নাম আনন্দ ঘোষ (৩৭)। বাগদা থানার কুলবেরিয়া পারুইপারা গ্রামের বাসিন্দা আনন্দকে ওই এলাকারই যুবক বাসুদেব ঘোষ কুড়ুল দিয়ে কোপ মেরে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ। এমনকী নিজের স্ত্রী কাকলি ঘোষকেও খুনের চেষ্টা করেছে বাসুদেব। আহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান কাকলি। বন্ধুর সঙ্গে স্ত্রীর পরকীয়ার সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ করেই এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।
  • Link to this news (এই সময়)