• SSC মামলায় ফের হাইকোর্টে চাকরিপ্রার্থীরা, বেনজিরভাবে রাতেই শুনানি
    এই সময় | ১৯ মে ২০২২
  • এসএসসি (School Service Commission) মামলায় নাটকীয় মোড়। মাঝরাতেই খুলতে চলেছে কলকাতা হাইকোর্ট। নথি নষ্টের আশঙ্কায় হাইকোর্টে চাকরিপ্রার্থীরা। অবিলম্বে সিআরপিএফ বসিয়ে চাকরির সমস্ত নথি সংরক্ষণের দাবি তুলেছে চাকরিপ্রার্থীরা। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Abhijit Ganguly) এজলাসে রাতেই হবে শুনানি। নজিরবিহীনভাবে রাতেই খুলছে কোর্ট। জরুরি ভিত্তিতে রাত সাড়ে দশটা নাগাদ শুরু শুনানি।

    মামলাকারীদের আশঙ্কা, দুর্নীতির জাল বহুদূর ছড়িয়ে। প্রভাবশালীদের যুক্ত থাকার তথ্য সামনে আশায় সমস্ত নথি ও প্রমাণ নষ্ট করে দেওয়ার আশঙ্কায় আদালতের দ্বারস্থ চাকরিপ্রার্থীরা। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের (Abhijit Ganguly) চেম্বারেই হয় শুনানি। ভার্চুয়ালি যোগ দেন মামলাকারীদের আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য। মামলার সঙ্গে যুক্ত হার্ড ডিস্ক সহ সমস্ত তথ্য সংরক্ষণের দাবি জানান তিনি। একইসঙ্গে বলেন, ইতিমধ্যে কারা কারা এসএসসি অফিসে গিয়েছিল তা সিসিটিভি ফুটেজে খতিয়ে দেখা হোক।

    এর আগে এদিন সন্ধেয় কোর্টের নির্দেশে সিবিআই দফতরে হাজির হন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টার ম্যারাথন জেরা শেষে অবশেষে নিজাম প্যালেস থেকে সাড়ে নটার কিছু পরে বেরন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee)।যদিও বাইরে বেরিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি। ডিভিশন বেঞ্চ থেকে কোনও রক্ষাকবচ না পেয়ে নির্ধারিত সময়ের ২০ মিনিট আগেই এদিন নিজাম প্যালেসে পৌঁছে যান পার্থ চট্টোপাধ্যায়। CBI হাজিরা নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের (Calcutta High Court) সিঙ্গল বেঞ্চের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করেছিলেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী। কিন্তু, তাঁর আবেদন খারিজ করে দেয় বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ। এরপরই নিজের নাকতলার বাড়ি থেকে বেরতে দেখা যায় মন্ত্রীকে।

    সূত্রের খবর, সাড়ে তিন ঘণ্টার জেরায় বেশিরভাগ প্রশ্নই এড়িয়ে গিয়েছেন রাজ্যেক প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী। সিবিআইয়ের বেশিরভাগ প্রশ্নেই তাঁর উত্তর ছিল, ''জানি না, মনে পড়ছে না।'' বলে খবর। SSC-র উপদেষ্টা কমিটির নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পর্কে তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়। তাঁর পুরো বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে বলে খবর। সাড়ে তিন ঘণ্টায় প্রায় দুদফায় তাঁকে জেরা করা হয়েছে জানা গিয়েছে।
  • Link to this news (এই সময়)