• বাচ্চা চুরি করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়লেন ১ মহিলা! চাঞ্চল্য ইসলামপুর হাসপাতালে
    এই সময় | ১৯ মে ২০২২
  • প্রসূতির বাচ্চা চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়লেন এক মহিলা। বুধবার চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর (North Dinajpur) জেলার ইসলামপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতাল (Islampur Super speciality hospital) চত্বরে। ঘটনায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে হাসপাতাল চত্বর জুড়ে। মানসিক ভারসাম্যহীন এক মহিলা প্রসূতির বাচ্চা নিয়ে পালানোর সময় হাতেনাতে ধরে ফেলেন পরিবারের লোকজন। অভিযুক্ত মহিলাটিকে ইসলামপুর থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

    ইসলামপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগ থেকে ওই মহিলা বাচ্চা চুরি করে পালাচ্ছিলেন বলে রোগীর আত্মীয়-স্বজনদের অভিযোগ। সেই সময় মহিলাটিকে ধরে ফেলেন রোগীর পরিবারের লোকজন। ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন রোগীর আত্মীয় স্বজনরা। পরবর্তীতে জানা যায় ওই মহিলা না কি মানসিক ভারসাম্যহীন। প্রশ্ন উঠেছে যদি ওই মহিলা ভারসাম্যহীন হয় তাহলে সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের ভিতরে ঢুকল কী করে? সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে এই ধরনের ঘটনায় হাসপাতালের নিরাপত্তা রক্ষীদের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছে রোগীর আত্মীয়রা। নিরাপত্তা রক্ষীদের গাফিলতির কথা স্বীকার করেন হাসপাতালের সিকিউরিটি গার্ডের ফেসিলিটি ম্যানেজার এহসান আলী আফজাল। খবর দেওয়া হয় ইসলামপুর থানার (Islampur Police Station) পুলিশকে। পুলিশ এসে অভিযুক্ত মহিলাকে আটক করে নিয়ে যায়।

    প্রসূতির এক আত্মীয় ফিরুল আহম্মেদ বলেন, ''আমরা পরিবারের লোকজন যখন প্রসূতির সঙ্গে দেখা করতে যাই, তখন গেটে আটকে দেওয়া হয়। কার্ড দেখালে তখন ঢুকতে দেওয়া হয়। অথচ একজন বাইরের লোক এভাবে কী করে ঢুকে গেল? নিরাপত্তা রক্ষী জানিয়েছে একজন মহিলা ঢুকছে দেখে তাঁরা বুঝতে পারেনি তিনি কোনো রোগীর পরিবারের লোক নন। মহিলা প্রসূতি বিভাগে পুরুষদের ঢোকার নিয়ম - কানুন থাকলেও একজন মহিলা হুট করে ঢুকে পড়েছে বলে তাঁরা খেয়াল করেনি। এরকম নিয়ম হলে বিপত্তি তো হবেই।'"

    প্রসূতির আরেক আত্মীয় আসমা খাতুন বলেন, ''ওই মহিলাটি হাসপাতালের ভেতর ঢুকে অনেকক্ষণ ধরেই বিভিন্ন ঘরে ঘুড়ে বেড়াচ্ছিলেন। আমি হঠাৎ করে দেখতে পাই আমাদের বাচ্চাটাকে নিয়েও চলে যাচ্ছে। আমি গিয়ে আটকাতে গেলে আমাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়ারও চেষ্টা করে। তারপর আমি চিৎকার করতে থাকি। ওই মহিলাটিকে দেখে অনেক আগেই আমার সন্দেহ হয়েছিল।"

    ইসলামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের সুপার সুরজ সিনহা জানিয়েছেন, "একটি অজ্ঞাতপরিচয় মহিলা নার্সের ড্রেস পড়ে একটি বাচ্চা নিয়ে বের হতে গেলে তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলা হয়েছে। মহিলাটিকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে আর না হয় তার জন্য সিকিউরিটিদের কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।''
  • Link to this news (এই সময়)