• ১৫০ বছর পিছিয়ে গেল আমেরিকা! গর্ভপাত নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের তীব্র সমালোচনা বাইডেনের
    এই সময় | ২৫ জুন ২০২২
  • গর্ভপাত নিয়ে মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের রায়ের কড়া সমালোচনা করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এই রায়ের ফলে আমেরিকা ১৫০ বছর পিছিয়ে গেল বলে জানিয়েছেন বাইডেন। সেই সঙ্গে এই ধরনের রায় মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের এক্তিয়ারের মধ্যে পড়ে কিনা, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বর্তমান প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও।

    ৫০ বছরের পুরনো গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে শুক্রবার মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট রায় দেয় গর্ভপাত মার্কিন মহিলাদের সাংবিধানিক অধিকার নয়। এই ঐতিহাসিক রায়ের বিরুদ্ধে শুক্রবার থেকেই একাধিক মহিলা সংগঠন ও মানবাধিকার কর্মীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। এবার সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন বর্তমান এবং প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

    গর্ভপাত নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে মর্মান্তিক ভুল বলে মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। জাতির উদ্দেশে ভাষণে তিনি বলেন এই রায়ের ফলে আমেরিকার মহিলাদের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। সেই সঙ্গে রায়ে কট্টরধারার চিন্তার প্রতিফলন ঘটেছে বলে জানান। সুপ্রিম সিদ্ধান্তের ফলে আমেরিকা ১৫০ বছর পিছিয়ে গেল বলে মনে করছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট।

    এখানেই থেমে থাকেননি বাইডেন। গর্ভপাত রুখতে যে যে রাজ্যে আইন তৈরি হবে, তার বিরুদ্ধে নিজের ক্ষমতাবলে যা যা করা যায়, তার চেষ্টা তিনি করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। গর্ভপাত নিয়ে সুপ্রিম নির্দেশের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও। আদালত শুধু ৫০ বছরের আইনকে বাতিলই করেন নি, সঙ্গে আমেরিকানদের স্বাধীনতার উপর আক্রমণ করেছে বলে টুইট বার্তায় জানান তিনি।গর্ভপাত নিয়ে সুপ্রিম রায়ের তীব্র সমালোচনা করেছেন প্রাক্তন ফার্স্ট লেডি মিচেল ওবামাও। এই রায়কে হৃদয়বিদারক বলে জানিয়েছেন তিনি।

    যদিও সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন প্রাক্তন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। এই রায়ের ফলে আমেরিকায় নতুন যুগের সূচনা হলো বলে মনে করছেন তিনি। আন্তর্জাতিক স্তরেও মার্কিন আদালতের রায় নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে জোর চর্চা। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এক বার্তায় গর্ভপাত নিয়ে রায়কে ভয়াবহ বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, ‘’ আমার হৃদয় লাখ লাখ আমেরিকান মহিলাদের জন্য কাঁদছে যাঁরা এখন গর্ভপাত আইনগত অধিকার হারাতে বসেছে “। তবে, তাঁর সরকার কানাডা মহিলাদের ইচ্ছার পক্ষেই আছেন বলে আশ্বাস দেন ট্রুডো।

    মার্কিন মুলুকে গর্ভপাতে আইনগত অধিকার কেড়ে নেওয়ার পর বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। সেই সঙ্গে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে আন্দোলনেরও। মার্কিন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে যে গর্ভপাত একটি মানবাধিকার। এটা সবার জন্য এবং সর্বত্র। অধিকার বাতিলের বিরুদ্ধে লড়াই চলবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।
  • Link to this news (এই সময়)