• West Bengal Covid Update: পরীক্ষা কমায় রাশ সংক্রমণেও, পজিটিভিটির হার বৃদ্ধিতে উদ্বেগ
    এই সময় | ২৬ জুন ২০২২
  • ডিসেম্বরের শেষের দিকে রাজ্যে আতঙ্ক বাড়িয়েছিল করোনা (Corona)। হু হু করে বেড়ে গিয়েছিল দৈনিক সংক্রমণ। যদিও তারপর ধীরে ধীরে সংক্রমণ অনেকটাই কমতে শুরু করে। স্বাভাবিক হয়ে যায় পরিস্থিতি। তার বেশ কিছুটা স্বস্তিতে ছিলেন রাজ্যবাসী (State COVID)। কিন্তু, ফের একবার রাজ্যে চোখ রাঙাচ্ছে করোনা। আবারও বাড়ছে সংক্রমণ। তবে গতকালের তুলনায় আজ সংক্রমিতের পরিমাণ অনেকটাই কম রয়েছে। গতকাল সংক্রমিতের সংখ্যা সাড়ে ছশোর আশপাশে ছিল। আজ তা ২৫০-র কম রয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৩৫ জন। তার মধ্যে কলকাতাতেই নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১১৬ জন। গতকাল সংখ্যাটা ছিল ৬৫৭। তবে সংক্রমিতের সংখ্যা কম থাকলেও উদ্বেগ বাড়াচ্ছে পজিটিভিটি রেট ও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা।

    করোনার দৈনিক সংক্রমণ কমলেও উদ্বেগ বাড়াচ্ছে করোনায় মৃতের সংখ্যা। আজ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। গতকালও রাজ্যে ২ জনের মৃ্ত্যু হয়েছিল। এদিকে গতকালের তুলনায় পজিটিভিটি রেট অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গতকাল পজিটিভিটি রেট ছিল ৭.০৪ শতাংশ। আর আজ তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭.২৭ শতাংশ। পাশাপাশি আজ করোনা পরীক্ষাও অনেকটাই কম হয়েছে। মাত্র ৩ হাজার ২৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

    স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্ট অনুযায়ী, করোনার শুরুর দিন থেকে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ২০ লাখ ২৪ হাজার ৪৫৯ জন। একদিনে সুস্থ হয়েছে ২১৭ জন। এখনও পর্যন্ত করোনাকে জয় করে রাজ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ১৯ লাখ ৯৯ হাজার ৭৬৭ জন। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২১ হাজার ২১৬ জনের।

    অন্যদিকে, দেশেও নতুন করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, ১৫ হাজার ৯৪০ জন। গত কয়েকদিন ধরেই দেশের কোভিড গ্রাফ ছিল ঊর্ধ্বমুখী। ফলে স্বাভাবিকভাবেই বেড়েছে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও। দেশে বর্তমানে অ্যাকটিভ কোভিড কেসের সংখ্যা ৯১ হাজার ৭৭৯। একদিনে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের। দৈনিক সংক্রমণ হার বর্তমানে ৪.৩৯ শতাংশ। দেশে বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হয়েছে। দিল্লিতে করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে ১৯ লক্ষ ২৮ হাজার ৮৪১।

    করোনার চতুর্থ ঢেউ প্রসঙ্গে এখনই কোনও সিদ্ধান্তে পৌঁছতে চাইছেন না বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের কথায়, এই বিষয়ে এত তাড়াতাড়ি মন্তব্য করা ঠিক নয়। সমস্ত রাজ্য থেকে প্রাপ্ত তথ্যগুলিকে যাচাই করেই উত্তর দেওয়া সম্ভব।
  • Link to this news (এই সময়)