• মহাসচিবের কাছে পুরসভার চেয়ারম্যান বদলের দাবি চুঁচুড়ার কাউন্সিলরদের
    এই সময় | ২৬ জুন ২০২২
  • দলের মহাসচিবের কাছে পুরসভার চেয়ারম্যান বদলের দাবি জানালেন কাউন্সিলররা। শনিবার চুঁচুড়া রবীন্দ্রভবনে ২১ জুলাইয়ের প্রস্তুতি সভা করে তৃণমূল। সেখানে আসেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। মহাসচিবের সামনে হুগলির চুঁচুড়া পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগড়ে দেন দলেরই ২৫ জন কাউন্সিলর। যদিও এনিয়ে সংবাদমাধ্যমে কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি পার্থবাবু৷

    তৃণমূল হুগলির চুঁচুড়া পুরসভার চেয়ারম্যান করেছিল অমিত রায়কে। যা মেনে নিতে পারেননি দলের প্রায় ২৫ জন কাউন্সিলর। এমনটাই দাবি৷ আরও দাবি, দলের নির্দেশ ছিল দলীয় নেতৃত্বের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করলে, তাঁকে শাস্তির মুখে পড়তে হবে। তাই অনিচ্ছা সত্ত্বেও অমিত রায়কে চেয়ারম্যান হিসাবে শপথ নিতে দেন কাউন্সিলররা। দল ঐক্যের বার্তা দিলেও, হুগলির চুঁচুড়া পুরসভায় গত চার মাসে সেই ঐক্যের ছবিটা দেখা যায়নি বলেই খবর৷ চেয়ারম্যানের সঙ্গে দূরত্ব রেখে তৃণমূল কাউন্সিলররা সময়ের অপেক্ষা করতে থাকেন বলেই খবর। এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে পেয়ে সেই অপেক্ষা দূর হয়। সরাসরি দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে চেয়ারম্যান বদলের দাবি জানান কাউন্সিলররা।

    পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘দলের নবনিযুক্ত কাউন্সিলরদের সঙ্গে পরিচয় হল। তাঁদের কী সুবিধা অসুবিধা শুনলাম।’’ কাউন্সিলরদের অভিযোগ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘সংবাদমাধ্যমে আমি এর উত্তর দেব না৷’’ পুরসভার চেয়ারম্যান অমিত রায় বলেন, ‘‘আমার বিরুদ্ধে ক্ষোভের বিষয়টি মানুষ বলবেন৷ প্রতিদিন প্রচুর লোক আসেন৷’’ তাঁর দাবি, ‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাকে চেয়ারম্যান করেছেন। কাউন্সিলর, বিধায়কদেরও তিনি টিকিট দিয়েছেন৷ আমি দলের নেত্রী নির্দেশমতো কাজ করি৷ যাঁরা কাজ না করে পয়সা নিয়েছেন, তাঁদের গায়ে লাগছে। পুরসভার চাকরির ক্ষেত্রে দুর্নীতিতে আমি সরব হওয়ায় ফিরহাদ হাকিম ৭০ জন নিয়োগের প্যানেল বাতিল করেন।’’

    তাঁর দাবি, ‘‘বর্তমানে যা হচ্ছে কোর্টে ওই নিয়োগ হলে, আমাদেরও ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হত। সেক্ষেত্রে কারও ক্ষোভ থাকতেই পারে।’’ একজন তো এর আগে ১২ বছর চেয়ারম্যান ছিলেন, তখন তো বদলের দাবি ওঠেনি৷ তখন তিনিও ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন, কিন্তু কখনও পুরসভায় এসে অভিযোগ করার মানসিকতা ছিল বলেও দাবি করেন৷

    পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে কাউন্সিলরদের শিখিয়ে পাঠানো হয়েছে বলে দাবি করেন অমিত রায়। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে যখন চেয়ারম্যান নিয়ে ক্ষোভ জানিয়ে তাঁকে বদলের দাবি করছেন কাউন্সিলররা, তখন পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার। চুঁচুড়ার ২৯ জন তৃণমূল কাউন্সিলরের মধ্যে ২৫ জন বিধায়ক অনুগামী বলে পরিচিত।
  • Link to this news (এই সময়)