• Nadia News: উদ্বোধনের আগেই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল সজলধারা প্রকল্প! চাঞ্চল্য নদিয়ায়
    এই সময় | ২৬ জুন ২০২২
  • উদ্বোধনের আগেই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল পানীয় জলের সজলধারা প্রকল্পের (Sajaldhara Scheme) লাইন। যদিও এই ঘটনায় কেউ হতাহত হননি৷ তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত নদিয়ার (Nadia) গাংনাপুর থানার মাঝেরগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। নিম্নমানের কাজ ও প্রকল্পে অনিয়ম হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে প্রতিবাদে প্রধানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা। যদিও ঠিকাদার সংস্থার উপর দায় চাপিয়ে অনিয়মের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পঞ্চায়েত প্রধান। বিষয়টি নিয়ে শাসক দলকে তীব্র কটাক্ষ করেছে BJP।

    স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রানাঘাট-২ (Ranaghat) নম্বর ব্লকের মাঝেরগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের হুমানিয়াপোতা মধ্যপাড়া এলাকায় প্রায় সাত লাখ টাকা ব্যয় করে পরিশ্রুত পানীয় জল সরবরাহের জন্য সজলধারা প্রকল্পের (Sajaldhara Scheme) লাইন তৈরি করা হয়। বর্তমানে জল সরবরাহের কাজ শুরুর আগে পরীক্ষামূলকভাবে প্রকল্পটি চালু করা হয়েছিল। অভিযোগ, উদ্বোধনের আগেই হঠাৎ করে প্রায় ১৫ ফুট উচ্চতার ওই প্রকল্পটি হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। বিকট আওয়াজ হওয়ায় হতভম্ব হয়ে যান এলাকার মানুষ৷ যদিও এই ঘটনায় কেউ হতাহত হননি। কারণ সেসময় কেউ সেখানে উপস্থিত ছিলেন না৷

    এরপরে শনিবার সকালে স্থানীয় বাসিন্দারা প্রকল্পের কাজের অনিয়মের অভিযোগ এনে প্রতিবাদে এলাকায় বিক্ষোভ দেখান। তাঁরা স্লোগান দেন, ‘‘নিম্নমানের কাজ করা হচ্ছে কেন, প্রধান তুমি জবাব দাও৷’’

    স্থানীয় বাসিন্দা অনিল মালাকারের দাবি, ‘‘সজলধারা জেলার প্রকল্প ৯ লাখ টাকার কাজ৷ সেখানে এক থেকে দেড় লাখ টাকার কাজ করেছে৷ কিন্তু শুক্রবার ড্রামে জল দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মুহূর্তেই ভেঙে পড়েছে৷ যদি সেখানে তখন কোনও লোক থাকত, মারা যেত৷ তার পরিস্থিতিটা কী হত৷ আমরা সুবিচার চাই৷ আর চার বছর ধরে এই পঞ্চায়েতে যে দুর্নীতি চলছে, সেজন্য আমরা CBI তদন্ত চাই৷ প্রধানের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন তিনি৷

    মাঝেরগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান প্রিয়াংকী পালের দাবি, কাজটা এখনও আন্ডার কনস্ট্রাকশন৷ কাজটা এখনও শেষ হয়নি৷ যে এজেন্সি কাজ করছে, তারা এখনও কাজ পঞ্চায়েতকে হস্তান্তর করেনি৷ ইঞ্জিনিয়ার দেখে নেয়নি৷ বিলও দেয়নি৷ সেই এজেন্সি যখন কাজটি করছে, সেসময় যদি কোনও দুর্ঘটনা ঘটে, তার দায়ভার কিন্তু সংস্থাটির, পঞ্চায়েতের নয়৷ দুর্ঘটনার খবর পেয়েই আমি এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করেছি৷ তারা রবিবারের মধ্যে কাজটি করে দেবে বলেছে৷’’ এটি সাত লাখ টাকার প্রকল্প বলে জানান প্রধান৷ কাজ শেষই হয়নি, ফলে উদ্বোধনের কোনও প্রশ্নই আসে না বলে দাবি করেন প্রধান৷
  • Link to this news (এই সময়)